বিদ্রোহী চেয়ারম্যান প্রার্থী কারাগারে, জয়ী করতে জরুরী বৈঠক

মোজাম্মেল হোসেন সজল: জেলা আওয়ামী লীগ সভাপতি মোহাম্মদ মহিউদ্দিন সমর্থিত চেয়ারম্যান প্রার্থী গোলাম মোস্তফা এখন ঢাকার কেন্দ্রীয় কারাগারে। তাই তার অনুপস্থিতিতে শহর লাগোয়া ৫০ হাজার ১৭৭ ভোটার অধ্যুষিত পঞ্চসার ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচনে এখন করনীয় কি-এ নিয়ে সোমবার সন্ধ্যায় জেলা আওয়ামী লীগ সভাপতির বাসভবন প্রাঙ্গণে জরুরী সভা অনুষ্ঠিত হয়েছে। অনুষ্ঠানে তলব করা হয় পঞ্চসার ইউনিয়ন আওয়ামী লীগ ও অঙ্গ সংগঠনের নেতাদের। ডাক পেয়েই উপস্থিত হন ইউনিয়ন আওয়ামী লীগসহ প্রতিটি ওয়ার্ডের আওয়ামী লীগ ও অঙ্গসংগঠনের নেতারা।

অনুষ্ঠানে উপস্থিত ছিলেন, জেলা আওয়ামী লীগ সভাপতি ও বঙ্গবন্ধুর ঘনিষ্ট সহচর, জেলা পরিষদের প্রশাসক মোহাম্মদ মহিউদ্দিনের ছোট ভাই সদর উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান, জেলা মুক্তিযোদ্ধা কমান্ডার আনিসউজ্জামান আনিস, জেলা আওয়ামী লীগ সভাপতির বড় ছেলে মুন্সীগঞ্জ পৌরসভার মেয়র হাজী মোহাম্মদ ফয়সাল বিপ্লব, আনিসউজ্জামান পুত্র আমরা মুক্তিযোদ্ধার সন্তান জেলা ইউনিট কমান্ডের সাধারণ সম্পাদক জালালউদ্দিন রুমি রাজন।

পঞ্চসার ইউনিয়ন আওয়ামী লীগ সভাপতি আলমগীর খানের সভাপতিত্বে সভায় পঞ্চসারের নেতৃবৃন্দের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন, সাধারণ সম্পাদক আক্তার হালদার, সহসভাপতি আব্দুল লতিফ, সাংগঠনিক সম্পাদক জয়নাল ঢালী, নয়টি ওয়ার্ডের সভাপতি-সাধারণ সম্পাদক, প্রবীণ আওয়ামী লীগ নেতা সাত্তার মোল্লা, হাজী আব্দুল করিম মোল্লা, সদর উপজেলা স্বেচ্ছাসেবক লীগের আহবায়ক শামীম হোসেন, জেলা ছাত্রলীগের প্রচার সম্পাদক রাজিব মোল্লা, ইউনিয়ন যুবলীগের সভাপতি ইমরান হোসেন, সাধারণ সম্পাদক রুবেল হোসেন, ইউনিয়ন কৃষকলীগের সাধারণ সম্পাদক আক্তার খান, সদর উপজেলা ছাত্রলীগের প্রচার সম্পাদক আকাশ খান প্রমুখ।

সভায় উপজেলা চেয়ারম্যান আনিসউজ্জামান আনিস বলেন, জেলা আওয়ামী লীগ সভাপতি মোহাম্মদ মহিউদ্দিনের ইজ্জত-সম্মান রক্ষা করতে হলে গোলাম মোস্তফাকে জয়ী করতে হবে। তাকে খাটো করা যাবে না। পঞ্চসারের প্রতিটি ওয়ার্ডে নির্বাচনী কমিটি গঠন করতে হবে। আজ থেকে আমিও মোস্তফার জন্য ঝাঁপিয়ে পড়লাম। আপনাদের সাথে আমি আছি, জয় নিয়ে বাড়ি ফিরবো। পুলিশ দিয়ে মাঠ খালি করতে চাইছে। ভোটের মাধ্যমে, জয়ের মাধ্যমে প্রমান করে দিবো আমরাও পারি।
মুন্সীগঞ্জ পৌরসভার মেয়র হাজী মোহাম্মদ ফয়সাল বিপ্লব পঞ্চসারের দলীয় নেতাদের উদ্দেশ্যে বলেন, মালাউন এমপির সঙ্গে মিলে ধানের শীষের হাবিব আওয়ামী লীগে ভাঙনের চেষ্ঠা করছে। আমরা হাঙ্গামা করবো কার সঙ্গে, বাতাসের সঙ্গে। ওদের লোক আছে।

আগামী সাতদিন ব্যাপী পঞ্চসারের বিভিন্ন ওয়ার্ডে ওয়ার্ড আওয়ামী লীগের ব্যানারে নির্বাচনী উঠোন বৈঠক হবে। আওয়ামী লীগের নেতৃত্বে আমার মালাউন এমপি সমর্থিত ধানের শীষের সঙ্গে ফাইট করবো।

তিনি আরও বলেন, বিএনপিকে কোন মতেই পাশ করতে দেয়া যাবে না, যেটা চেষ্ঠা করছে মালাউন এমপি। হাবিব পাশ করলেও ওকে চেয়ারে বসতে দেয়া হবে না। না পারলে জিব কেটে ফেলবো।

উল্লেখ্য, পঞ্চসার ইউপি নির্বাচন ঘিরে জেলা আওয়ামী লীগ সভাপতি ও স্থানীয় সংসদ গ্রুপের সহিংসতায় পাল্টা পাল্টি মামলায় রোববার বেলা ১১ টার দিকে গোলাম মোস্তফাকে পুলিশ মুক্তারপুরের নিজ বাসভবন থেকে গ্রেপ্তার করে। গতকাল সোমবার ভোরে গোলাম মোস্তফাকে ঢাকার কেন্দ্রীয় কারাগারে পাঠিয়ে দেয় জেলা কারা কর্তপক্ষ। এরআগে গত ১২ই এপ্রিল বেলা সাড়ে ১১টার দিকে আওয়ামী লীগের বিদ্রোহী চেয়ারম্যান প্রার্থী গোলাম মোস্তফার মুক্তারপুরস্থ শাওবান ফাইবার ইন্ডাষ্ট্রিজে বিবদমান জেলা আওয়ামী লীগ সভাপতি মোহাম্মদ মহিউদ্দিন ও স্থানীয় সংসদ সদস্য অ্যাডভোকেট মৃণাল কান্তি দাস গ্রুপের মধ্যে সংঘর্ষ বাধে।

নিউজ৬৯

Comments are closed.