আ’লীগ সাধারণ সম্পাদককে হত্যার হুমকী ॥ থানায় ডায়রী

টঙ্গীবাড়ী উপজেলা বেতকা ইউনিয়ন আওয়ামী লীগ সাধারণ সম্পাদক ও পাইকপাড়া উচ্চ বিদ্যালয়ের ভারপ্রাপ্ত প্রধান শিক্ষক আক্তার হোসেন মোল্লাকে প্রাণ নাশের হুমকী দিয়েছে ওই ইউনিয়নের বর্তমান চেয়ারম্যান শওকত আলী খান মুক্তার। আওয়ামী লীগ কাউন্সিল নির্বাচনে তাকে ভোট না দেওয়ায় অভিযোগ এনে সোমবার সকাল ৮টার দিকে মুক্তার খানসহ তার সহযোগী কয়েকজন আক্তার হোসেন মোল্লার বাড়িতে হাজির হয়ে তাকে এই হত্যার হুমকী প্রদান করে বলে জানান আক্তার হোসেন মোল্লা। এ ব্যাপারে আক্তার হোসেন মোল্লা বাদী হয়ে টঙ্গীবাড়ী থানায় একটি সাধারণ ডায়রী করেছেন। যাহার নং ১১৬।

অন্যদিকে আক্তার হোসেন মোল্লা পাইকপাড়া ইউনিয়ন উচ্চ বিদ্যালয়ের ভারপ্রাপ্ত প্রধান শিক্ষক হওয়ায় এই হুমকী প্রদানকে কেন্দ্র করে তাঁর বিদ্যালয়ের ছাত্র-ছাত্রীদের মধ্যে চাপা ক্ষোভ বিরাজ করছে।

এ ব্যাপারে আক্তার হোসেন মোল্লা জানান, গত ২৪ই মার্চ উপজেলার রংমেহার পল্লি উন্নয়ন ক্লাবে আওয়ামীলীগের কাউন্সিলে বেতকা ইউনিয়ন হতে বাচ্চু শিকদারকে নৌকা প্রতিকের চেয়ারম্যান প্রার্থী হিসাবে গোপন ভোটের মাধ্যমে কাউন্সিলররা নির্বাচিত করে। ওই নির্বাচনে আমি কাউন্সিল হিসাবে পরাজিত প্রার্থী মুক্তার খানকে ভোট দেইনি বলে অভিযোগ তুলে আমার বাড়িতে গিয়ে আমাকে প্রাণ নাশের হুমকী প্রদান করে।

এ ব্যাপারে মুক্তার খান বলেন, ‘আমি সৌজন্য সাক্ষাতের জন্য তার বাড়ি গিয়েছেলাম তাকে কোন হুমকী দেইনি।’

জনকন্ঠ

Comments are closed.