আড়ালে চলে নিষিদ্ধ কারেন্টজাল উৎপাদন!

এম.এম.রহমান: মুন্সীগঞ্জের সদরের ফিরিঙ্গি বাজারে পরিবেশের ক্ষতি করে গড়ে ওঠেছে একাধিক রাইস মিল। আর এসব রাইস মিলের তুষ বাতাসে উড়ে গ্রামের ভিতরে ঢুকে যায় এতে করে সাধারন মানুষ নানা ধরনের সমস্যার মধ্যে দিন কাটাচ্ছে। তাছাড়া কারখানার মালিকরা রাতের আধারে এসব ছাই নদীতে ফেলে নদীর পানির ক্ষতি করছেন। একাধিক কারখানার মালিক ড্রেনের মাধ্যমে পঁচা পানি ও ছাই সরাসরি নদীতে ফেলছে।

সরেজমিনে ফিরিঙ্গবাজারে ঘুরে দেখা যায়, বোগদাদ অটো রাইস মিলের মালিক আফছার উদ্দিন মুন্সী তার রাইস মিলের ভিতরে প্রশাসনের চোখে ফাঁকি দিয়ে নিষিদ্ধ কারেন্টজাল উৎপাদন করছেন। একাধিক এলাকাবাসি জানান, আমরা ভয়ে কিছু বলতে সাহস পাচ্ছিনা। কারখানার তুষ বাড়ীতে উড়ে এসে গাছপালা ও বাড়ী ঘর নোংরা করে ফেলছে। আমরা ঠিক মতো নি:শ্বাস নিতে পারিনা সব সময় সর্দি কাঁসি লেগে থাকে।

ওই এলাকার গৃহবধু মাহমুদা বেগম জানান, এ তুষের কারনে ঠিকমতো চোখ মেলে তাকাতে পারিনা। আমরা নানাভাবে প্রতিবাদ করেও কোন সুফল পাইনি। এমন অনেক সাংবাদিক এসেছিল কোন প্রতিকার হয়নি । বর্তমানে এলাকার কোন গাছে ফল ধরছেনা এসব বিষাক্ত ছাঁইয়ের কারনে।

এ ব্যাপারে কারখানার মালিক আফছার উদ্দিন মুন্সীর নিকট জানতে চাইলে তিনি ক্ষিপ্ত হয়ে বলেন, কেন ছাঁই ওড়ে আর নদীতে ফেলি যাই করি এটার জবাব আপনাদের দিবনা । যান পারলে কিছু করে দেখান ।

এ ব্যাপারে মুন্সীগঞ্জ জেলার পরিবেশ কর্মকর্তা মিয়া মাহমুদুল হক এর সাথে আলাপকালে তিনি বলেন, এসব তুষ বা ছাই পরিবেশের জন্য ঝুঁকি । তারা নদীতে এসব ছাই ফেলিলে এবং রাইস মেলের অনুমোদন নিয়ে পাশাপাশি অন্য ব্যবসার সাথে যদি জড়িত থাকে তাহলে কঠোর আইনগত ব্যবস্থা নেয়া হবে ।

এ ব্যাপারে অতিরিক্ত জেলা ম্যাজিস্ট্রেট শওকত আলম মজুমদারের সাথে ফোনালাপে তিনি বলেন, রাইস মিলের আড়ালে কারেন্টজাল উৎপাদন কিংবা পরিবেশের ক্ষতি করে তাহলে প্রয়োজনীয় আইনগত ব্যবস্থা নেয়া হবে।

চমক নিউজ

Comments are closed.