নির্বাচনকে কেন্দ্র করে দেবরের আগুনে পুড়ল ভাবীর হাত!

সিরাজদিখানে লতব্দী ইউনিয়ন নির্বাচনকে কেন্দ্র করে গয়াতলা গ্রামের প্রবাসী সিরাজ মিয়ার স্ত্রীর সালমা বেগম (৩৫) কে আগুন দিয়ে পোড়ানোর অভিযোগ উঠেছে। বুধবার সকালে এঘটনা ঘটে।

জানা যায়, লতব্দী ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচনে নবনির্বাচিত চেয়ারম্যান এস এম সোহরাব হোসেনের সমর্থক মিজানুুর রহমান ক্ষমতার অপব্যবহার করে তার নিজ ভাবিকে আগুন দিয়ে পুড়িয়ে মারার চেষ্টা করে।

সালমা বেগম জানান, আমি সকাল বেলায় রান্না ঘর থেকে দেখি আমার দেবর কুড়াল দিয়ে গাছের ডালা কেটে নিয়ে যাচ্ছে। আমি রান্না ঘর থেকে বলি গাছ কাটছেন কেন। আমার দেবর দৌড়ে রান্না ঘরে এসে আমাকে বলে এখন শুধু ডালা কেটেছি বেশী কথা বললে পুড়ো গাছ কেটে নিয়ে যাবো। ভাগ্য ভালো তোর স্বামী দেশে নেই নইলে গাছ না কেটে তোর স্বামীকেই কাটতাম।

এখন আমরা ক্ষমতায় আছি থানায় মামলা করলেও আমাকে কিছুই করতে পারবিনা। আমি আমার বেদবরের কথার জবাব দিলে মারধর করে জলন্ত চুলায় আমার হাত চুলাই ঠুকিয়ে বলে আজ তোকে পুড়িয়ে মেরে ফেলবো। আমি চিৎকার করলে লোকজন এসে পরলে দেবর আমার হাত ছেড়ে পালিয়ে যায়।

লতব্দী ইউনিয়ন এর স্বতন্ত্র চেয়ারম্যান হাফেজ মো. ফজলুল হকের সমর্থন করায় আমার উপর নির্যাতন করে।

সাংবাদিকদের প্রশ্নের জবাবে অভিযুক্ত মিজানুর রহমান বলেন, এটা আমাদের পরিবারের বিষয়। বাহিরে যদি জানাজানি হয় তাহলে সোহরাব চেয়ারম্যান ব্যাপারটা দেখবে। তিনি আরও বলেন, আমি ভাবিকে মারিনি। তবে ডালা কাটছি।

সিরাজদিখান থানার ওসি বলেন, এ ব্যাপারে থানায় অভিযোগ করলে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহণ করব।

বিক্রমপুর সংবাদ

Comments are closed.