পারিবারিক অবহেলায় প্রসূতি মা ও নবজাতক মৃত্যুর অভিযোগ

মুন্সীগঞ্জের গজারিয়া উপজেলার চরবাউশিয়া গ্রামে মঙ্গলবার রাতে পরিবারের অবহেলায় ও সঠিক সময়ে চিকিৎসার অভাবে একজন প্রসূতি মা ও নবজাতক কন্যা শিশু মৃত্যুর ঘটনা ঘটেছে। প্রত্যক্ষদর্শী ও স্থানীয় সুত্রে জানা যায়, চরবাউশিয়া বড়কান্দি গ্রামের মনির হোসেনের কন্যা ও দিনমজুর লিটন মিয়ার সন্তান সম্ভবা স্ত্রী লাইলী বেগম প্রসব ব্যাথা শুরু হয় প্রায় তিন দিন আগে। এ সময় ধরে গাম্য দাই ওই সন্তান সম্ভাব্য লাইলী বেগমকে ঘরেই সন্তাণ প্রসবের চেষ্টা করেন। ষাট ঘন্টা পর মঙ্গলবার রাতে একটি মৃত সন্তান প্রসব করে লাইলী বেগম।

একই গ্রামের জুলহাস সরকারের স্ত্রী গ্রাম্য দাই লাকী বেগম চিকিৎসা সেবা দেয়ার পর অতিরিক্ত রক্ত ক্ষরণ শুরু হলে মঙ্গলবার রাত সোয়া আটটায় উপজেলা স্বাস্থ্যকমপ্লেক্সে নেয়ার পথে লাইলী বেগমও মারা যায়। স্থানীয়দের সাথে কথা বলে জানা যায়, গ্রাম্য দাই লাকীর অপচিকিৎসার খপ্পরে না পরে সময় মতো হাসপাতালে নিয়ে গেলে প্রসূতি মা ও নবজাতককে হয়তো বাচানো সম্ভব হতো।

নিহত লাইলীর দিন মজুর স্বামী লিটন এবং নয় ও ছয় বছর বয়সী দুটি ছেলে সন্তান নিয়ে বাবা মনির হোসেনের বাড়িতেই বসবাস করতো।

একাধিক এলাকাবাসী ক্ষোভের সাথে বলেন, তাদের সমস্যার বিষয়টি জানলে আমরা সবাই মিলে সাহায্য করতাম, অকালে শিশু ও মাকে এভাবে অপচিকিৎসায় মরতে হতো না। নিহত লাইলীর পরিবার লাকী বেগমের বিষয়ে কোন কথা বলতে চায়নি। লাকী বেগমকে খোজ করে তার বাড়িতে পাওয়া যায়নি।

বুধবার উপজেলা হাসপাতালে দায়িত্বরত চিকিৎসক ডা. লিয়াকত হোসেন জানান, মঙ্গলবার রাতে মৃত অবস্থায় লাইলীকে হাসপাতালে নিয়ে আসে আত্মীয়রা।

জনকন্ঠ

Comments are closed.