দ্বিতীয় দিনের মতো ঢাকা-দোহার সড়ক অবরোধ করে বিক্ষোভ

শ্রীনগরে তৃণমূল আওয়ামী লীগের মনোনয়ন বাতিল হওয়ায়
আরিফ হোসেন: শ্রীনগরে তৃনমূল মনোনীত আওয়ামী লীগ প্রার্থীকে বাদ দিয়ে কেন্দ্রীয় আওয়ামী লীগ অন্য একজনকে প্রত্যয়নপত্র দেওয়ায় মঙ্গলবার দ্বিতীয় দিনের মতো ঢাকা-দোহার সড়ক অবরোধ করে বিক্ষোভ করেছে স্থানীয় আওয়ামী লীগের নেতাকর্মীরা। গতকাল বেলা এগারটা থেকে দুপুর বারটাা পর্যন্ত বিক্ষোভকারীরা বালাশুর বাসষ্ট্যান্ডে অবস্থান নেয় এবং ব্যারিকেট দিয়ে যানবাহন চলাচল বন্ধ করে দেয়। পরে পুলিশ এসে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রনে আনে এবং ওই রাস্তায় যানবাহন চলাচল স্বাভাবিক হয়। এর আগে তৃণমূল আওয়ামী লীগ মনোনীত মনির হোসেন মিটুলের সমর্থকরা ভাগ্যকুল বজার থেকে মিছিল নিয়ে বালাশুর বাসষ্ট্যান্ডে এসে জড়ো হয়।

এসময় বিক্ষোভকারীরা অভিযোগ করেন, ভাগ্যকূল ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের প্রার্থী হিসাবে ওই ইউনিয়নের সাধারণ সম্পাদক মনির হোসেন মিটুলকে নির্বাচিত করা হয়। কিন্তু গত রবিবার কেন্দ্রীয় আওয়ামী লীগ ঘোষিত তালিকায় দেখা যায় কাজী মনোয়ার হোসেন শাহদাতের নাম । তারা আরো জানান, ভাগ্যকূল ইউনিয়নের আওয়ামী লীগ প্রার্থী মনোনয়নের জন্য উপজেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি ও স্থানীয় এমপি সুকুমার রঞ্জন ঘোষের শ্রীনগরের বাসভবনে ওয়ার্ড আওয়ামী লীগের সভাপতি ও সাধারণ সম্পাদকদের গোপন ভোট অনুষ্ঠিত হয়। এতে ভাগ্যকূল ইউনিয়নের আওয়ামী লীগ সাধারণ সম্পাদক মনির হোসেন মিটুল ওই ইউনিয়নের আওয়ামী লীগ প্রার্থী মনোনীত হন। পরে তা উপজেলা কমিটি ও জেলা কমিটি স্বাক্ষর করে তা কেন্দ্রে প্রেরন করে। এর পরপরই মিটুলকে ভাগ্যকূল ইউনিয়নের আওয়ামী লীগ মনোনীত চুড়ান্ত প্রার্থী হিসাবে ধরে মাঠে নামে আওয়ামী লীগ কর্মীরা।

কিন্তু রবিবার আওয়ামী লীগ সভাপতির ধানমন্ডির রাজনৈতিক কার্যালয়ে আয়োজিত সংবাদ সম্মেলনে ঘোষিত তালিকায় দেখা যায় ভাগ্যকূল ইউনিয়নের প্রার্থী হিসাবে কাজী মনোয়ার হোসেনের নাম চুড়ান্ত হয়েছে । এতে উপজেলা আওয়ামী লীগ ও ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের নেতাকর্মীরা বিস্মিত হয়ে ক্ষোভ প্রকাশ করতে থাকেন। এর প্রতিবাদে আজ ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের নেতা কর্মীরা দ্বিতীয় দিনের মতো বিক্ষোভ প্রদর্শন করেন এবং ফের মনির হোসেন মিটুলকে আওয়ামী লীগের প্রার্থী হিসাবে নির্বাচন করার সুযোগ দেওয়ার জন্য হাইকমান্ডের কাছে আহবান জানান।

Comments are closed.