শ্রীনগরে তৃনমূল আওয়ামী লীগ মনোনীত প্রার্থী হাইকমান্ডে পরিবর্তন

ঢাকা-দোহার সড়ক অবরোধ ও বিক্ষোভ
আরিফ হোসেন: শ্রীনগরে তৃনমূল মনোনীত আওয়ামী লীগ প্রার্থীকে পরিবর্তন করে হাইকমান্ড অন্যএকজনকে মনোনীত করায় ঢাকা-দোহার সড়ক অবরোধ করে বিক্ষোভ করেছে স্থানীয় আওয়ামী লীগের নেতাকর্মীরা। সোমবার বেলা এগারটা থেকে দুপুর একটা পর্যন্ত বিক্ষোভকারীরা বালাশুর বাসষ্ট্যান্ডে অবস্থান নেয় এবং রাস্তায় টায়ার জ্বালিয়ে যানবাহন চলাচল বন্ধ করে দেয়।

এসময় বিক্ষোভকারীরা অভিযোগ করেন, ভাগ্যকূল ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের প্রার্থী হিসাবে ওই ইউনিয়নের সাধারণ সম্পাদক মনির হোসেন মিটুলকে নির্বাচিত করা হয় কিন্তু গত রবিবার কেন্দ্রীয় আওয়ামী লীগ ঘোষিত তালিকায় দেখা যায় কাজী মনোয়ার হোসেন শাহদাতের নাম। তারা আরো জানান, ভাগ্যকূল ইউনিয়নের আওয়ামী লীগ প্রার্থী মনোনয়নের জন্য উপজেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি ও স্থানীয় এমপি সুকুমার রঞ্জন ঘোষের শ্রীনগরের বাসভবনে ওয়ার্ড আওয়ামী লীগের সভাপতি ও সাধারণ সম্পাদকদের গোপন ভোট অনুষ্ঠিত হয়।

এতে ১৮ টি ভোটের মধ্যে ভাগ্যকূল ইউনিয়নের আওয়ামী লীগ সভাপতি মনির হোসেন মিটুল ১৬ ভোট পেয়ে ওই ইউনিয়নের আওয়ামী লীগ প্রার্থী মনোনীত হন। প্রতিদ্বন্দিতাকারী অপর প্রার্থী বর্তমান চেয়ারম্যান ও আওয়ামী লীগ নেতা কাজী মনোয়ার হোসেন শাহাদাৎ পান ২ ভোট। ফলাফল সীটে স্বাক্ষর করেণ উপজেলা আওয়ামী লীগ সভাপতি সুকুমার রঞ্জন ঘোষ এমপি ও সাধারণ সম্পাদক তোফাজ্জল হোসেন। জেলা কমিটির সভাপতি মোহাম্মদ মহিউদ্দিন ২৬ ফেব্রুয়ারী শ্রীনগরে এসে ভাগ্যকূল ইউনিয়নের প্রার্থী হিসাবে মনির হোসেন মিটুলের নাম ঘোষনা করে তিনিও ফলাফল সীটে স্বাক্ষর করেন।

পরে জেলা কমিটির সাধারণ সম্পাদক লুৎফর রহমান স্বাক্ষর করে তা কেন্দ্রে প্রেরণ করেন। মিটুলকে ভাগ্যকূল ইউনিয়নের আওয়ামী লীগ মনোনীত চুড়ান্ত প্রার্থী হিসাবে ধরে মাঠে নামে আওয়ামী লীগ কর্মীরা। কিন্তু রবিবার আওয়ামী লীগ সভাপতির ধানমন্ডির রাজনৈতিক কার্যালয়ে আয়োজিত সংবাদ সম্মেলনে ঘোষিত তালিকায় দেখা যায় ভাগ্যকূল ইউনিয়নের প্রার্থী হিসাবে কাজী মনোয়ার হোসেনের নাম চুড়ান্ত হয়েছে।

এতে উপজেলা আওয়ামী লীগ ও ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের নেতাকর্মীরা বিস্মিত হয়ে ক্ষোভ প্রকাশ করতে থাকেন। এর প্রতিবাদে গতকাল ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের নেতা কর্মীরা বিক্ষোভ প্রদর্শন করেন এবং ফের মনির হোসেন মিটুলকে আওয়ামী লীগের প্রার্থী হিসাবে নির্বাচন করার সুযোগ দেওয়ার জন্য হাইকমান্ডের কাছে আহবান জানান।

Comments are closed.