সিরাজদিখানে নির্বাচনী আচরণবিধি লঙ্ঘন

কে. এন. ইসলাম বাবুল: সিরাজদিখানে নির্বাচনী আচরণবিধি লঙ্ঘনের অভিযোগ পাওয়া গেছে। নমিনেশন পত্র জমা দিতে এসে অনেকে মিছিল সহকারে উপজেলা পরিষদে প্রবেশ করেছেন। এদের মধ্যে রশুনিয়া ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান প্রার্থী ইকবাল হোসেন চোকদার, ইছাপুরা ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান প্রার্থী আব্দুল মতিন হাওলাদার, বালুচর ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান প্রার্থী আবু বকর সিদ্দিক ও বাসাইল ইউনিয়ন চেয়ারম্যান প্রার্থী সাইফুল ইসলাম যুবরাজ রয়েছেন।
এদিকে সোমবার রাতে ইমামগঞ্জ এলাকায় মাজারের ওরশ অনুষ্ঠানে আ’লীগের মনোনীত বাসাইল ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান প্রার্থী সাইফুল ইসলাম (যুবরাজ) নির্বাচনী বক্তব্য দিতে গিয়ে আচরণবিধি লঙ্ঘন করে এবং তার প্রতিদ্বন্দি প্রার্থীদের হেয় করে বক্তব্য রাখেন বলে একাধিক অভিযোগ উঠেছে।

এলাকাবাসী অনেকেই জানান, সাইফুল ইসলাম বিভিন্ন অপরাধ কর্মকান্ডের সাথে জরিত রয়েছে। সন্ত্রাসী বাহিনী দ্বারা অন্যের জমির মাটি জোর করে কেটে তার ইটের ভাটায় নিয়ে যায়। তার ভয়ে কেউ বাধা দিতে সাহস পায় না।

বাসাইল ইউনিয়নের যুবলীগের সভাপতি নজরুল ইসলাম টিটু জানান, ওরশ অনুষ্ঠানে সাইফুল চেয়ারম্যান এক প্রার্থীকে উদ্দেশ্য করে তার বক্তব্যে বলেন সে বাটপার ফাপর দিয়ে খায় কোন ব্যবসা বাণিজ্য নাই।

বাসাইল ইউনিয়ন পরিষদ স্বতন্ত্র চেয়ারম্যান প্রার্থী সামসুজ্জামান পনির বলেন, এমন উদ্দেশ্য প্রনীত বক্তব্য নির্বাচন আচরণবিধি লঙ্ঘন আমি এর তীব্র প্রতিবাদ জানাই।
এ ব্যাপারে জানতে চাইলে সাইফুল ইসলাম অস্বীকার করে জানান, এগুলি বানোয়াট কথা। আমাকে বলে কসাই, ডাকাত, ভূমিদস্যূ ও মাদক ব্যাবসায়ী আসলে আমি একসময় কসাই ছিলাম। ভূমিদস্যূ না আমার একটা ইটের ভাটা আছে। আমি মাটি কিনে নেই।

এফএনএস

Comments are closed.