প্রবাস প্রজন্ম সম্মাননা ২০১৬ পাচ্ছেন মোঃ খুরশীদ আলম

৮ম প্রবাস প্রজন্ম জাপান সম্মাননা ২০১৬ দেয়া হচ্ছে সঙ্গীত জগতের এক উজ্জ্বল নক্ষত্র, জীবন্ত কিংবদন্তী মোঃ খুরশীদ আলমকে। আগামী ১মে ২০১৬ টোকিওতে এক জাঁকজমক আয়োজনের মাধ্যমে তার হাতে এ সম্মাননা তুলে দেওয়া হবে। বাংলাদেশ চলচ্চিত্র শিল্পে শক্তিমান প্লে-ব্যাক শিল্পী হিসেবে দীর্ঘ চার দশকের ও বেশী সময় ধরে অবদান রাখার জন্য তাকে এ সম্মাননা দেওয়া হচ্ছে। এ উপলক্ষে প্রবাস প্রজন্ম জাপান আয়োজিত এক মনোজ্ঞ সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠানে বাংলাদেশের রাষ্ট্রদূত ছাড়াও জাপান- বাংলা উভয় দেশের বিশিষ্ট ব্যক্তিবর্গ উপস্থিত থাকবেন।

জাপানে বেড়ে ওঠা প্রবাসী শিশু-কিশোরদের বাংলাদেশের সাহিত্য, সংস্কৃতি, ভাষা, ইতিহাস ও ঐতিহ্যের সঙ্গে সংশ্লিষ্ট রেখে শিশু কিশোরদের জীবনে মননে দেশ, মাটি ও মানুষের নিরবিচ্ছিন্ন সুরধারা সঞ্চারের লক্ষ্যে ২০০৭ সালে জন্ম নেয়া শিশু কিশোরদের একমাত্র সংগঠন ‘প্রবাস প্রজন্ম জাপান’ যাত্রা শুরু করে, সেই থেকে নিয়মিত ভাবে প্রতিবছর প্রবাস প্রজন্ম বার্ষিক আয়োজনের মাধ্যমে শিশু কিশোরদের উৎসাহ দেয়ার জন্য বাংলাদেশের স্বনামধন্য ব্যক্তিদের আমন্ত্রন জানিয়ে সম্মাননা দিয়ে আসছে।

বাংলাদেশের চলচ্চিত্র শিল্পের সবচেয়ে জনপ্রিয় ও প্রভাবশালী প্লে-ব্যাক গায়ক খুরশীদ আলম ১৯৬৯ সালে বাংলা চলচ্চিত্র “আগন্তুক” ছায়াছবিতে ‘বন্দী পাখির মতো’ গানটি দিয়ে প্লে-ব্যাক জগতে যাত্রা শুরু করেন । দীর্ঘ চার দশকের ও বেশী সময় তিনি বাংলা চলচ্চিত্রে ৩,০০০ এর ও বেশী গান গেয়েছেন যা তাকে প্লে-ব্যাক গায়ক জগতের অত্যন্ত উচ্চ আসনে আসীন করেছে।

মোঃ খুরশীদ আলমের কণ্ঠে জনপ্রিয় গানগুলির মধ্যে ‘যদি বউ সাঁজো গো (ওয়াদা), মা গো মা, ওগো মা (সমাধি), চুপি চুপি বলো, কেউ জেনে যাবে (নিশান), ধীরে ধীরে চল ঘোড়া (পাপমুক্তি), চুমকী চলেছে একা পথে (দোস্ত-দুশমন), বাপের চোখের মনি নয়, মায়ের সোনার খনি নয় (জোকার), আমার সাধ না মিটিলো, আশা না পোড়ালো (চাপা ডাঙ্গার বউ) উল্লেখযোগ্য।

অনুষ্ঠানটি জাপানে দুই প্রজন্মের মিলন মেলা হিসেবে খ্যাত। এ পর্যন্ত যারা প্রবাস প্রজন্ম সম্মাননা পেয়েছেন তারা হলেন, বিশিষ্ট সাহিত্যিক শিক্ষক ও গবেষক ড. মুহাম্মদ জাফর ইকবাল, শিশু সাহিত্যিক মিডিয়া ব্যক্তিত্ব একুশে পদক প্রাপ্ত ফরিদুর রেজা সাগর, সাংবাদিক সঞ্চালক, লেখক গোলাম মোর্তোজা, বিশিষ্ট রবীন্দ্র সংগীত শিল্পী রেজওয়ানা চৌধুরী বন্যা, সঙ্গীত ভুবনে গানের পাখি খ্যাত ফাহমিদা নবী, সঙ্গীত জগতের উজ্জ্বল নক্ষত্র সুবীর নন্দী, চিত্রশিল্পী মুস্তাফা মনোয়ার, সঙ্গীত জগতের আরেক দিক পাল বারী সিদ্দিকী, সঙ্গীত তারকা দম্পতি রফিকুল আলম ও আবিদা সুলতানা এবং জাপানে বাংলাদেশী বংশোদ্ভুত এ সময়ের অত্যন্ত জনপ্রিয় মডেল, টিভি ব্যক্তিত্ব, সঙ্গীত শিল্পী রোলা।

২৪ জানুয়ারী ২০১৬ রোববার টোকিওর কিতা সিটি আকাবানে বুনকা সেন্টারে বিভিও হলে সাপ্তাহিক প্রতিনিধি রাহমান মনি’র সভাপতিত্বে ৮ম প্রবাস প্রজন্ম’১৬ এক প্রাক প্রস্তুতি সভায় সর্বসম্মতিক্রমে এ বছর মোঃ খুরশীদ আলম’কে প্রবাস প্রজন্ম সম্মাননা ২০১৬ প্রদানের সিদ্ধান্ত গৃহীত হয়। ৮ম প্রবাস প্রজন্ম আয়োজনে মুনশী কে, আজাদ কে আহ্বায়ক করা হয়। সভায় জাপান প্রবাসীদের দ্বারা পরিচালিত বিভিন্ন পেশাজীবী, সামাজিক-সাংস্কৃতিক, রাজনৈতিক, ব্যবসায়ী ও আঞ্চলিক সংগঠনসমূহের নেতৃবৃন্দ এবং স্থানীয় প্রবাসী মিডিয়া কর্মীবৃন্দ উপস্থিত ছিলেন।

মূলত রবীন্দ্র সঙ্গীত শিল্পী হিসাবে গানের ভূবনে পদচারনা শুরু হলেও খুরশীদ আলম প্লে-ব্যাক গায়ক হিসাবে নিজের অবস্থান দৃঢ় করে নেন। মা-কে নিয়ে ৫০টি বেশী গান গেয়েছেন গুণী এই শিল্পী।

শুভেচ্ছান্তে-

রাহমান মনি
সদস্য সচিব
প্রবাস প্রজন্ম, জাপান।

E-mail: rahmanmoni@gamil.com

Comments are closed.