আবার সেই মুজিব পরদেশী

গান রেকর্ডের সময় অর্ণব, মুজিব পরদেশী ও মোস্তফা সরয়ার ফারুকী‘আমি গণমানুষের জন্য গান করেছি। সব সময় নিজেকে গণমানুষের শিল্পী মনে করেছি। গান গেয়ে তেমন কোনো আয় আমার কখনোই হয়নি। একসময় ভেবেছিলাম, মুজিব পরদেশীর গান বলে এখন আর কিছু নেই। কিন্তু এ সময়ের মানুষ আমাকে মনে রেখেছে, তাতেই আমি ধন্য হয়ে গেলাম।’ বললেন মুজিব পরদেশী।

একসময় দারুণ জনপ্রিয় ছিল মুজিব পরদেশীর গান। ‘কলমে নাই কালি’, ‘আমি বন্দী কারাগারে’, ‘সাদা দিলে কাদা’, ‘তোমায় আমি হলেম অচেনা’ গানগুলো এখনো অনেককেই নস্টালজিক করে দেয়। ফিরিয়ে নিয়ে যায় তিন যুগ আগে। সেই মুজিব পরদেশীই অনেক বছর পর আবার গান করেছেন। গত রোববার সন্ধ্যায় রাজধানীর নিকেতনে সংগীতশিল্পী অর্ণবের স্টুডিওতে তিনি কণ্ঠ দিয়েছেন তাঁর একসময়ের জনপ্রিয় গান ‘কলমে নাই কালি’তে। পুরো গানটি নয়, এই গানের স্থায়ী অংশ ঠিক রেখে বাকি দুটি অন্তরা নতুন করে লিখেছেন মুজিব পরদেশী। সংগীতায়োজন করেছেন অর্ণব।

গানটি রেকর্ড করার পর অর্ণব বলেন, ‘এখন বাদ্যযন্ত্রের আধিক্যের কারণে শিল্পীদের কণ্ঠের কারুকাজ তেমন পাওয়া যায় না। যেহেতু প্রয়োজন হয় না, তাই কেউ তা চর্চাও করেন না। কিন্তু মুজিব পরদেশীর কণ্ঠে এখনো সেই কারুকাজ আছে। তিনি যে অনেক বছর গান করেননি, তা কেউ বুঝতেই পারবেন না।’

মোস্তফা সরয়ার ফারুকী একটি পণ্যের বিজ্ঞাপনচিত্র তৈরি করছেন। তাতে তিনি মুজিব পরদেশীর এই গানটি ব্যবহার করছেন। ফারুকী বললেন, ‘কিছুদিন আগে মগবাজার সিগন্যালে গাড়িতে বসে আছি। তখন পাশ থেকে একটি চায়ের দোকানে মুজিব পরদেশীর গানটি শুনতে পাই। একসময় আমরা মুজিব পরদেশীর অসংখ্য গান শুনেছি। এরপর তাঁকে খুঁজতে থাকি। একসময় পেয়েও যাই। আশা করছি, দর্শক-শ্রোতারা অনেক বছর পর আবার মুজিব পরদেশীর গান শুনতে পাবেন বিজ্ঞাপনচিত্রটিতে।’

আগামী কয়েক দিনের মধ্যেই ফারুকী নির্মিত এই বিজ্ঞাপনচিত্রটি দেশের সব টিভি চ্যানেলে দেখানো হবে।

প্রথম আলো

Comments are closed.