সিরাজদিখানে যাচ্ছে প্লাস্টিক কারখানা

খুব দ্রুততম সময়ে যাত্রা করতে যাচ্ছে বাংলাদেশ ক্ষুদ্র ও কুটির শিল্প কর্পোরেশন (বিসিক) প্লাস্টিক শিল্পনগরী। পুরান ঢাকার আশেপাশে অপরিকল্পিত ও অস্বাস্থ্যকর পরিবেশে গড়ে ওঠা প্লাস্টিক শিল্প কারখানাগুলোকে সেখানে স্থানান্তর করা হবে।

প্রস্তাবিত পরিবেশসম্মত শিল্পনগরীটি ঢাকার অদূরে মুন্সীগঞ্জ জেলার সিরাজদিখান উপজেলায় ৫০ একর জমিতে গড়ে উঠবে। এ শিল্পনগরীতে চলে যাচ্ছে অপরিকল্পিতভাবে গড়ে ওঠা ঢাকার প্লাস্টিক কারখানাগুলো। ফলে নগরীর মধ্যে আর ছড়িয়ে-ছিটিয়ে থাকবে না প্লাস্টিক কারখানা।

পরিকল্পনা কমিশন সূত্র জানায়, ‘বিসিক প্লাস্টিক শিল্পনগরী’ প্রকল্পের আওতায় ঢাকা থেকে মুন্সীগঞ্জে পরিকল্পিতভাবে স্থানান্তর করা হবে ক্ষুদ্র প্লাস্টিক কারখানাগুলো। মঙ্গলবার (০১ ডিসেম্বর) জাতীয় অর্থনৈতিক পরিষদের নির্বাহী কমিটি (একনেক) সভায় চূড়ান্ত অনুমোদনের জন্য প্রকল্পটি উপস্থাপন করা হবে। প্রকল্পের মোট ব্যয় ধরা হয়েছে ১৩৩ কোটি টাকা। ২০১৬ সালের জুলাই থেকে ২০১৮ সালের জুন মেয়াদে প্রকল্পটি বাস্তবায়ন করবে বিসিক।

প্রকল্পের আওতায় ৩৬০টি শিল্প স্থাপনের লক্ষ্যে উদ্যোক্তাদের জন্য অবকাঠামোগত সুবিধা দেওয়া হবে। মানসম্মত প্লাস্টিক পণ্যের উৎপাদন বাড়ানোর উদ্যোগ গ্রহণ করা হবে।

বিসিক সূত্র জানায়, বর্তমানে দেশে প্রায় ৫ হাজার ৩০টি প্লাস্টিক শিল্প কারখানা আছে যার মধ্যে অধিকাংশই বেসরকারি মালিকানাধীন। এর মধ্যে ৫০টি বড়, ১ হাজার ৪৮০টি মাঝারি এবং প্রায় সাড়ে তিন হাজারটি ক্ষুদ্র প্লাস্টিক কারখানা। এর মধ্যে ৮০ শতাংশই ঢাকাকেন্দ্রিক এবং ৯০ শতাংশই পুরান ঢাকায় অবস্থিত।

ঢাকায় ছড়িয়ে-ছিটিয়ে থাকা প্লাস্টিক কারখানাগুলোকে একটি কাঠামোগত রুপ দিতে বাইরে নিয়ে যাওয়ার সিদ্ধান্ত হয়েছে।

পরিকল্পনা কমিশনের এক কর্মকর্তা বলেন, মঙ্গলবার একনেক সভায় মোট ৭টি প্রকল্প উপস্থাপন করা হবে। একনেক কাযর্তালিকায় রাখা হয়েছে প্রকল্পটি।

বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর

Comments are closed.