শ্রীনগরে সংখ্যা লঘু ৫ টি পরিবারে দুর্ধর্ষ ডাকাতি

৩৬ ভড়ি স্বর্ণালংকার ও নগদ সাড়ে ৪ লাখ টাকা লুট: অমানবিক নির্যাতনে নারী শিশু সহ আহত ১০
আরিফ হোসেন: শ্রীনগরে সংখ্যালঘু হিন্দু সম্প্রদায়ের ৫ টি পরিরবারের দুর্ধর্ষ ডাকাতি হয়েছে। ডাকাতি করার সময় ওই পরিবার গুলোর নারী শিশু সহ ১০ জনের উপর অমানবিক নির্যাতনের ঘটনা ঘটেছে। ধারালো অস্ত্রের আঘাতে জখম হওয়া ৫ জনকে উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্স ও ঢাকায় হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে। তাদের মধ্যে বাবুল মুনি (৩৬) নামে একজন ঢাকা সিটি হাসপাতালের আইসিইউতে মৃত্যুর সাথে পাঞ্জা লড়ছেন। বুধবার রাত একটার দিকে উপজেলার কামারগাও নয়াবাড়ী এলাকার মুনিপাড়ায় এঘটনা ঘটে।

স্থানীয়রা জানায়, ওই পাড়ার বাবুল (৩৬), শরৎ (৩৪), বলাই (৬০), সোনাই (২৮) ও গোবিন্দ (৫৫) এর ঘরে ডাকাতির ঘটনা ঘটে। গোবিন্দ মুনি দাসের স্ত্রী পার্বতী মুনি জানান, রাত একটার দিকে ৩৫-৪০ জনের একটি সংঘবদ্ধ ডাকাত দল বাড়িতে প্রবেশ করে কয়েক রাউন্ড ফাকা গুলি ছুড়ে আতঙ্ক তৈরি করে। এরপর ডাকাতরা প্রথমে বাবুল মুনির দোতলা ঘরের দরজা ভেঙ্গে ভেতরে প্রবেশ করে তার মাথায় ধারালো অস্ত্র দিয়ে ম কুপিয়ে জখম করে এবং তার স্ত্রী রিনা মুনিকে নির্যাতন করে ১৬ ভড়ি স্বর্ণালংকার ও নগদ ১২ হাজার টাকা ছিনিয়ে নেয়।

পরে একই ষ্টাইলে ডাকাতরা শরৎ মুনি, বলাই মুনি, সোনাই মুনি ও গোবিন্দ মুনির ঘরের দরজা ভেঙ্গে ভেতরে প্রবেশ করে আসবাবপত্র তছনছ করে এবং তাদের কুপিয়ে জখম করে। এসময় গোবিন্দ মুনির স্ত্রী পাবর্তী (৪৮), বলাই মুনির স্ত্রী সুচিত্রা (৪৫) ও তার নাতি সূর্য (৪) এর উপর মধ্যযুগীয় কায়দায় নির্যাতন চালায়।

পরে ডাকাতরা শরৎ মুনির ঘর থেকে নগদ ১১ ভড়ি স্বর্ণালংকার ও নগদ দেড় লাখ টাকা, বলাই মুনির ঘর থেকে ৬ ভড়ি স্বর্ণালংকার ও নগদ ৮০ হাজার টাকা, গোবিন্দ মুনির ঘর থেকে ২ ভড়ি স্বর্ণালংকার ও নগদ ২ লাখ টাকা এবং সোনাই মুনির ঘর থেকে মোবাইল ফোন সহ মূল্যবান জিনিসপত্র লুট করে নিয়ে যায়।

পরে ডাকাতরা তাদেরকে নানা রকম হুমকি ধামকি দিয়ে পদ্মা নদীর পার ধরে চলে যায়। মুনি পারার লোকজনরে চিৎকারে আশ-পাশের লোকজন এসে আহতদরেকে উদ্ধার করে চিকিৎসার জন্য দোহার উপজেলার ফুলতলা ক্লিনিকে, শ্রীনগর উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্স ও ঢাকায় প্রেরণ করে।

এঘটনায় মুনি পাড়ার প্রায় ৩৫ টি সংখ্যা লঘু পরিবারের মধ্যে আতংক বিরাজ করছে। এব্যাপারে শ্রীনগর থানার অফিসার ইনচার্জ সাহিদুর রহমান জানান, ডাকাতির মামলা নিয়ে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নেওয়া হবে।

Comments are closed.