বখাটের হামলায় জেএসসি পরীক্ষার্থীর পরীক্ষা পন্ড

রাণী হক: সিরাজদিখানে ৮ম শ্রেণীর ছাত্রিকে উত্যক্ততার প্রতিবাদ করায় বখাটের ওই স্কুল ছাত্রীর চাচা ও ভাইকে মারধর করেছে। গত শনিবার রাত সাড়ে ৯টায় বখাটেরা তার গ্রাম সম্পর্কীয় ভাই কাকাকে মারধর করে। বখাটের ভয়ে অষ্টম শ্রেণির ওই ছাত্রী (১৩) চলমান জেএসসি পরীক্ষা বন্ধ করে দিয়েছে।

মেয়েটির মা অনুরাধা দাস অভিযোগ করেন, দীর্ঘ দিন ধরে সাগর বাড়ৈ তাঁর মেয়েকে উত্ত্যক্ত করে আসছে। এ ঘটনায় গত মাসে স্থানীয় ইউনিয়ন পরিষদের (ইউপি) সদস্য ও গণ্যমান্য ব্যক্তিরা সালিস বৈঠক করে সাগরকে শাসিয়ে মেয়েটিকে উত্ত্যক্ত না করার জন্য সতর্ক করে দেন।এ ঘটনায় থানায় অভিযোগ করতে চাইলে স্থানীয় গণ্যমান্য ব্যক্তিরা বিষয়টি সালিস করে দেওয়ার কথা বলে মামলা করতে দেননি। ওই ঘটনার পর সাগর কিছু দিন উত্ত্যক্ত করেনি। সম্প্রতি সে মেয়েটিকে আবার উত্ত্যক্ত শুরু করে ।

শনিবার রাতে ওর বাবার বন্ধু একই গ্রামের কাকা ননী গোপাল ও গ্রাম সম্পর্কীয় ভাই পিযুষকে চাকু ও শাবল দিয়ে জকম করলে আমার মেয়ে ভয়ে জেএসসি পরীক্ষা দেওয়া বন্ধ করে দেয়।

কানাইনগর গ্রামের সতীশ চন্দ্র সরকারের ছেলে আহত ননী গোপাল সরকার বলেন, উপজেলার চিত্রকোট ইউনিয়নের কানাইনগড় গ্রামের দুবাই প্রবাসী মদন দাস আমার বাল্যকালের বন্ধু। মদন দাস বিদেশে চলে গেলে ওদের ভালো মন্দ দেখাশোনা আমি সময় পেলে করি। কয়েক মাস ধরে একই ইউনিযনের খারশুর এলাকার কালাচান বাড়ৈয়ের বখাটে ছেলে সাগর বাড়ৈ (২৩) মুঠোফোনে ও রাস্তায় তাঁর ভাতিজিকে উত্ত্যক্ত করতেন। এ নিয়ে একাধিকবার বখাটের বাবার কাছে নালিশ করে এর সমাধান করা হয়। এতে সাগর ক্ষিপ্ত হন।

গত সোমবার রাত বারটার দিকে সাগর, আমার ভাতিজি ছাত্রীটিকে ওঠিয়ে আনতে বাড়িতে হামলা দেয়। এই সময় ছাত্রীর মা ও ছাত্রীর আত্মচিৎকারে এলাকার লোকজনসহ আমার এগিয়ে এসে ধমকিয়ে বাড়ি থেকে বিদায় করে দেই। পরের দিন রাত সারে ৯টায় বাজার থেকে আমি আমার ভাগে একই গ্রামের বিমল মন্ডলের ছেলে পিযুষ মন্ডল(২৫), মৃত রতি মন্ডলের ছেলে সম্ভু মন্ডল(৩৫) ও খিতিশ মন্ডলের ছেলে রাজীব মন্ডল(৩০) বাড়িতে যাওয়ার সময় সাগড়,কালাচান ও রুপচান সহ কয়েক জন চাকু ও লোহার শাবল দিয়ে মারধর করেন। এতে তাঁর ও তার ভাগ্নের মাথা ফেটে যায়।

এ সময় তাঁরা ওই ব্যক্তির কাছে থাকা এক লাখ ৫ হাজার টাকা ছিনিয়ে নেন। পরে স্থানীয় লোকজন এগিয়ে এলে তাঁরা পালিয়ে যান। চিকিৎসার জন্য তিনি সিরাজদিখান উপজেলা ¯া^স্থ্য কম্পেলেক্স হাসপাতালে ভর্তি হয়েছেন। এলাকার রমজান আলী বেপারীর ছেলে হালিম মেম্বার বলেন,শুক্রবার রাতে মেয়ের বাড়িতে হামারা করলে এ সময় সে(ননী গোপাল) এর প্রতিবাদ করলে উভয়ের মধ্যে বাগিবতন্ডার সৃষ্টি হয়। একপর্যায়ে সাগর শনিবার রাতে সড়ক এলাকায় বাড়ি যাওযার পথে তার মাথায় উপর্যুপরি ছুরিকাঘাত ও মাবল দিযে বাড়ি মারে করে পালিয়ে যায়। তার ডাক-চিৎকারে এলাকাবাসী এসে তাকে উদ্ধার করে হাসপাতালে নেয়।

সিরাজদিখান উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ডাঃ নূরুন নবী বিল্লা বলেন, দুই জনের মাথা ফেটে গেছে। কিছু এক্সরে ও মাথার সিটিস্ক্যান করলে বুঝা যাবে রোগীর অবস্থা। প্রয়োজনে উন্নত চিকিৎসার জন্য ঢাকায় রেফার করবো।

সিরাজদিখান উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা রওনক আফরোজা সুমা বলেন, আমাকে এ ঘটনা কেউ জানাননি আমি আমার সোর্স থেকে এ ঘটনা জেনেছি ।তারপর থানা ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা কে বহিত করি ।

তিনি আরও জানান, বখাটের কারনে মেয়েটির জেএসসি পরীক্ষা বন্ধ হলো। আমরা এই বখাটের আইনি ব্যবস্থা কি করা যায় দেখব।

এ ব্যাপারে নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক খারশুর গ্রামের একজন অভিযোগ করে বলেন ভখাটেদের ব্যাপারে বর্তমান সিরাজদিখান থানার ওসি ইযারদেস হাসানকে বহুবার বলার পরেও খারশুর স্কুলের সামনে স্কুলের সময় বখাটেদের আড্ডা অভিযোগ অদৃশ্য কারণে তিনি আমলে নেননি। তার এই গাফিলতির এই সমস্যার অন্যতম কারণ।

এ ব্যাপারে খোঁজ নিতে গতকাল বৃহস্পতিবার এলাকায় গেলে সাগরের পরিবারের কাউকে পাওয়া যায়নি।

সিরাজদিখান থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মোঃ ইয়ারদৌস হাসান বলেন, আমার কাছে এখনও কোন অভিযোগ পরেনি। অভিযোগ পেলে ব্যাবস্থা নেব।

ক্রাইম ভিশন

Comments are closed.