শ্রীনগরে সাব রেজিষ্ট্রারের দূর্নীতির বিরুদ্ধে বিক্ষোভ

আরিফ হোসেন: শ্রীনগরে সাব রেজিষ্ট্রারের দূর্নীতির বিরুদ্ধে বিক্ষোভ করেছে দলিল লেখক সমিতির সদস্যরা। বুধবার দুপুর একটার দিকে উপজেলা সাব রেজিষ্ট্রি অফিসে এ ঘটনা ঘটে। শ্রীনগর সাব রেজিষ্ট্রি অফিসের দলিল লেখক সমিতির সদস্যরা জানান, সাব রেজিষ্ট্রার বিলাল উদ্দিন আকন্দের মাত্রাতিরিক্ত ঘুষ বানিজ্য থেকে পরিত্রান পেতে বুধবার দুপুরে স্থানীয় সংসদ সদস্য সুকুমার রঞ্জন ঘোষের কাছে তারা লিখিত অভিযোগ করেছেন।

তারা আরো জানান, বিলাল উদ্দিন আকন্দ প্রায় আট মাস পূর্বে এ অফিসে যোগদান করেণ। একটি দলিল সম্পাদনের ক্ষেত্রে সরকারী নিয়ম অনুযায়ী জমির হাল সনের খাজনা রশিদ, মূল পর্চা বা এর সইমুহুরী কপি প্রয়োজন। কিন্তু তিনি এখানে যোগদানের পর থেকে অবৈধভাবে সাব রেজিষ্ট্রি অফিসের দলিল লেখকদের জিম্মি করে অলিখিত নিয়ম চালু করেন। তার নিয়ম অনুযায়ী দলিল প্রতি তাকে খাজনা রশিদ না থাকলে ৫শ,পর্চার মূল কপি না থাকলে ৫শ, দলিলে উল্লেখিত প্রতি লাখ মূল্যের জন্য ৩শ, হেবা ঘোষণা, বন্টন, পাওয়ার নামা দলিল হলে ২ হাজার – ২ হাজার ৫শ করে টাকা ঘুষ দিতে হয়। যার পরিমাণ প্রতি মাসে প্রায় ১৫ লাখ টাকা। এ টাকা তিনি দলিল লেখকদের মাধ্যমে দলিল গ্রহীতাদের কাছ থেকে নিয়ে থাকেন। কয়েক দিন পূর্বে তিনি দলিল লেখক সমিতির সদস্যদের ডেকে এসকল খাত থেকে দ্বীগুন অর্থ দাবী করেন। তার এ দাবীর বিরোধীতা করে দলিল লেখক সমিতি গ্রাহকদের কাছ থেকে সরাসরি তাকেই টাকা নিতে বলেন।

এ নিয়ে দলিল লেখকদের সাথে তার মনোমালিন্য হয়। পরে তিনি অফিস ষ্টাফদেরকে সরাসরি টাকা নিতে বললে তারাও বেকে বসেন। এতে বিলাল উদ্দিন আকন্দ দলিল লেখকদের দেওয়া অর্থে অফিস ষ্টাফদের দুপুরের খাবার বন্ধকরে দেন এবং সে টাকা নিজেই নিতে শুরু করেন। ফলে অফিস ষ্টাফরা ক্ষুদ্ধ হয়ে ১৫ দিন ধরে দলিলের নকল লেখা বন্ধ রেখেছেন।

বুধবার বিলাল উদ্দিন আকন্দ তার দাবী পূরণ না করলে কোন দলিল রেজিষ্ট্রি হবেনা বলে জানিয়ে দেন। শ্রীনগর সাব রেজিষ্ট্রি অফিসের দলিল লেখক মুজিবুর রহমান, মহসীন মিয়া, আ: সাত্তার, সজিব, প্রদীপ সরকার, শফিকুল ইসলাম বাবু সহ আরো কয়েকজন জানান, তারা দলিল রেজিষ্ট্রি করতে গেলে বিলাল উদ্দিন আকন্দ তাদের কাছে অতিরিক্ত অর্থ দাবী করেন। তার দাবীকৃত অর্থ না দেওয়ায় তিনি দলিল রেজিষ্ট্রি না করে তাদেরকে ফিরিয়ে দেন। এতে দলিল রেজিষ্ট্রি করতে আসা কয়েকশ জনগন ক্ষোভে ফেটে পড়েন।

শ্রীনগর সাব রেজিষ্ট্রি অফিসের দলিল লেখক সমিতির সভাপতি পরিমল চক্রবর্তী জানান, গত মঙ্গলবারও সাব রেজিষ্ট্রার বিলাল উদ্দিন আকন্দ দলিল লেখক নির্মল মন্ডলের তিনটি দলিলে পর্চার ফটোকপি থাকার অজুহাতে তিন হাজার টাকা ঘুষ নিয়েছেন। অথচ আজ তার দাবীকৃত দ্বিগুন টাকা না দেওয়ায় কোন দলিল রেজিষ্ট্রি করেননি। তার এসকল দুর্নীতির বিষয়ে স্থানীয় এমপি মহোদয়কে লিখিত ভাবে জানানো হয়েছে।

শ্রীনগর উপজেলা সাব রেজিষ্ট্রার বিলাল উদ্দিন আকন্দ দলিলের নকল বন্ধ থাকার বিষয়টি স্বীকার করে বলেন, তার বিরুদ্ধে আনীত অভিযোগ সঠিক নয়।

Comments are closed.