তিন শ্রমিকের মৃত্যুর দাম লাখ টাকা!

মোহাম্মদ সেলিম: জীবনের দাম লাখ টাকা। জীবন দিয়ে লাখ টাকা হাতিয়ে নিলো তিনটি পরিবার। এরকম ঘটনা ঘটেছে মুন্সীগঞ্জ সদর উপজেলার পঞ্চসার ইউনিয়নের ডিঙ্গাভাঙ্গা এলাকায়। এখানে নির্মাণ কাজের সময় বিদ্যুৎস্পৃস্ট হয়ে তিন শ্রমিকের মৃত্যুর ঘটনা দামাচাপা দিতে মোটা অংকের লেনদেনের খবর পাওয়া গেছে। মামলা মোকাদ্দমা এড়াতে দুর্ঘটনার লাশ হাসপাতাল থেকে ময়না তদন্ত ছাড়াই দাফন করা হয়েছে। এ কারণে মুন্সীগঞ্জ থানায় কোন মামলা হয়নি। আর এ সুযোগটি নিয়েছে নিহতের পরিবার। ডিঙ্গাভাঙ্গার আশরাফের বাড়িতে কাজ করার সময় এ তিন শ্রমিক মারা যায়। এ ঘটনার পরেই আশরাফসহ তাদের অন্য ভাইয়েরা বাড়ি থেকে পালিয়ে যায়। পরে নিহতের তিনটি পরিবারকে জনপ্রতি এক লাখ করে মোট তিন লাখ টাকা দিয়ে আবার বাড়িতে ফিরে আসে তারা। আর এই কাজে দালালের ভূমিকায় যারা কাজ করে তাদেরকেও দিতে হয়েছে অর্ধ লাখ টাকা।

আশরাফের এই দালান নির্মাণ করতে একজন ঠিকাদারকে চুক্তিভিত্তিক নিয়োগ দেন। এরপর এই ঠিকাদার অন্য আরেক জনের কাছে সাব কন্টাকে এই কাজের দায়িত্ব দেন। এতো গুলো হাত বদলে আনকোরা লোক দিয়ে কাজ করানোর ফলে অকালে তিনটি তাজা প্রাণ ঝড়ে গেলো। আর প্রাণের বিনিময়ে মোটা টাকা হাতিয়ে নিলো পুলিশ। বিকেল সাড়ে ৫টার দিকে এ ঘটনা ঘটে। মৃত্যুর মিছিলে আপন দু’ভাই রয়েছে। তারা হচ্ছে চৌগারপাড় গ্রামের সফি শেখের পুত্র মোজাম্মেল হোসেন ও মতিন। মৃত্যু হওয়া নির্মান শ্রমিক মোজাম্মেল হোসেন (৩৫), মানিক (২৫) ও মতিন (৩০)।

এছাড়া একই ঘটনায় আহত নির্মান শ্রমিক আয়ুব আলীর পুত্র সবুজ ও আদারিয়াতলা গ্রামের বারেকের পুত্র বিজয়কে প্রাথমিক চিকিৎসার পর ঢাকা মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে রেফার্ড করা হয়েছে। ময়নাতদন্ত ছাড়াই হাসপাতাল থেকে নিমান শ্রমিকের আতœীয় স্বজনরা শ্রমিকদের লাশ নিয়ে গেছে বলে খবর পাওয়া গেছে। এ ঘটনার পর থেকে বাড়ির মালিক বাড়ি থেকে পালিয়ে গেছে। জানা গেছে, ডিঙ্গাভাঙ্গা এলাকায় লিটন, সাহাবুদ্দিন ও মো. আশাবুদ্দিন মিয়ার তিন ভাইয়ের বাড়িতে নির্মিত ভবনে শ্রমিকরা কাজ করছিল। নিচ থেকে ওপরে রড ওঠানামার সময় ভবনের পাশে থাকা বিদ্যুতের তাড়ে জড়িয়ে পড়ে ৫ শ্রমিক বিদ্যুৎস্পৃষ্ট হয়।

পরে স্থানীয় এলাকাবাসী ও অপর নির্মান শ্রমিকরা তাদের উদ্ধার করে মুন্সীগঞ্জ জেনারেল হাসপাতালে নিয়ে যায়। জরুরি বিভাগের কর্তব্যরত চিকিৎসক ডাক্তার এনামুল হক জানান, হাসপাতালে আনার আগেই ৩ শ্রমিককে মৃত হয়েছে। অপর দুই জনকে প্রাথমিক চিকিৎসা দেওয়া হয়েছে।

বিক্রমপুর সংবাদ

Comments are closed.