হাত-পা বাঁধা ৩০ গরু ব্যবসায়ী উদ্ধার

লৌহজংয়ে পদ্মা নদীতে গরুবাহী ট্রলারে ডাকাতির ঘটনায় তিন দিন পার হলেও এখন পর্যন্ত খোঁজ মেলেনি ৪৫টি গরুসহ ট্রলারটির। তবে শনিবার বিকালে ফরিদপুরের সুরেশ্বর এলাকার পদ্মার চরের কাশবন থেকে ডাকাতের কবলে পড়া লৌহজংয়ের গফুর ভান্ডারী ট্রলারের মাঝিসহ ৩০ জন গরু ব্যবসায়ীকে নদীতে থাকা জেলেদের সহযোগিতায় উদ্ধার করা হয়েছে। তাদের হাত-পা বাঁধা ছিল। তাদের চন্দ্রীপুরের ঘাটে এনে নামিয়ে দেন জেলেরা।

গফুর ভান্ডারী ট্রলারের মাঝি মুন্সীগঞ্জের লৌহজং উপজেলার বনসেমন্ত গ্রামের মৃত সামাদ হাওলাদারের ছেলে আল আমিন জানান, বৃহস্পতিবার সন্ধ্যায় মাদবরেরচর পশুর হাট থেকে গরু কিনে ৩০ জন পাইকারসহ গরু বোঝাই ট্রলারটি মাদবরেরচর থেকে ছেড়ে আসে। লৌহজংয়ের সীমানায় আসার আগ মুহূর্তে ছোট একটি ট্রলার নিয়ে ২০-২৫ জনের একটি ডাকাত দল গরু বোঝাই ট্রলারটির গতি রোধ করে। শনিবার দুপুর পর্যন্ত কোনো খোঁজ মেলেনি ট্রলারে থাকা লোকজনের। বিকালে সুরেশ্বরের পদ্মার চরে লোকজনের চিৎকারের আওয়াজ পেয়ে চরের মধ্যে মাছ ধরতে আসা জেলেরা এগিয়ে এলে হাত-পা বাঁধা অবস্থায় উদ্ধার করা হয়।

ডাকাতি হওয়া গরু ব্যবসায়ীদের মধ্যে রয়েছে সিরাজদিখান উপজেলার ধামালিয়া গ্রামের হালেম বেপারির ৩টি গরু, একই গ্রামের আমান উদ্দিন বেপারির ২টি গরু, লাল মিয়ার ৪টি গরু, দীন ইসলামের ৩টি গরু, লৌহজং উপজেলার বাসুদিয়া গ্রামের জুলহাস দেওয়ানের ৪টি গরু, একই গ্রামের রিপন দেওয়ানের ৩টি গরু, কাজিরগাঁ গ্রামের আকবর বেপারির ২টি গরু, টঙ্গীবাড়ি উপজেলার পূর্ব বালিগাঁও গ্রামের লিটন পাঠানের ৪টি গরু রয়েছে। এছাড়া আরও বিভিন্ন এলাকার পাইকারদের গরুও এই ট্রলারে ছিল বলে জানান ট্রলারের মাঝি আল আমিন। ট্রলারের মাঝি গফুর মিয়ার অভিযোগ, এ বিষয়ে লৌহজং থানায় যোগাযোগ করা হলে থানা থেকে তাকে জানানো হয়, এ ঘটনাটি যেহেতু নড়িয়া থানায় সেখানেই অভিযোগ করতে হবে।

এ বিষয়ে লৌহজং থানার অফিসার ইনচার্জ মোল্লা জাকির হোসেন জানান, পদ্মায় যে এলাকায় দুর্ঘটনাটি ঘটেছে এটা আমাদের থানা এলাকায় নয় বিধায় কোনো ব্যবস্থা নিতে পারছি না। উল্লেখ্য, বৃহস্পতিবার রাতে শরীয়তপুরের মাদবরেরচর এলাকা থেকে ৪৫টি কোরবানির পশু নিয়ে একটি ট্রলার লৌহজংয়ে আসার পথে মাঝ পদ্মায় ডাকাতরা হামলা চালিয়ে গরুভর্তি ট্রলারটি ছিনতাই করে নিয়ে যায় ফরিদপুরের সুরেশ্বরের চরে। গত তিন দিনেও গরু বোঝাই ট্রলারটির কোনো সন্ধান মেলেনি।

যুগান্তর

Comments are closed.