৫০ ভাগ ড্রেজিং সম্পন্ন শিমুলিয়া-কাওড়াকান্দি রুটে

শিমুলিয়া-কাওড়াকান্দি নৌরুটে পদ্মার নাব্যতা সঙ্কট নিরসনে ড্রেজিংয়ের কাজ ইতোমধ্যে ৫০ ভাগ সম্পন্ন হয়েছে। বাংলাদেশ অভ্যন্তরীণ নৌপরিবহন কর্তৃপক্ষের (বিআইডব্লিউটিএ) ড্রেজিং বিভাগের নিবার্হী প্রকৌশলী আব্দুস সালাম খান দ্য রিপোর্টকে ফোনে জানান, গত ২ সেপ্টেম্বর এ চ্যানেলে ড্রেজিং শুরু হয়। ইতোমধ্যে ৫০ ভাগ খননকাজ সম্পন্ন হয়েছে। লৌহজং টার্নিংয়ের মাথায় ড্রেজিং শেষ হয়েছে। এখন ডাউনে ড্রেজিং করলে আশা করি নাব্যতা থাকবে না।

তিনি আরও জানান, ডাউনে ড্রেজিংয়ের জন্য ইতোমধ্যে পাইপসহ যন্ত্রপাতি বসানো হয়েছে। আর ৩-৪ দিন খনন করলেই পুরো কাজ শেষ হবে। ঈদে পুরোদমে সব ফেরি এই নৌরুটে চলাচল করতে পারবে।

এদিকে বিআইডব্লিউটিএ’র নিদের্শ অনুযায়ী শনিবারও এ রুটে ফেরি চলাচল বন্ধ রযেছে। ফেরি চলাচল বন্ধ থাকবে ১৫ সেপ্টেম্বর পর্যন্ত।

বাংলাদেশ অভ্যন্তরীণ নৌপরিবহন সংস্থার (বিআইডব্লিউটিসি) শিমুলিয়া ঘাট ব্যবস্থাপক (বাণিজ্য) দ্য রিপোর্টকে বলেন, এ চ্যানেলে চায়না সিনো হাইড্রোর শক্তিশালী ড্রেজার দিয়ে খননকাজ পুরোদমে চলছে। খনন সম্পন্ন হলে ফেরি চলাচল স্বাভাবিক হবে। আশা করি ঈদে ফেরি চলাচল স্বাভাবিক থাকবে।

তিনি আরও বলেন, পদ্মায় এখন স্রোত খুব বেশি। আর আমাদের বেশিরভাগ ফেরি পুরনো, ইঞ্জিন দুর্বল। তাই এগুলোকে স্রোতের সঙ্গে পেরে উঠতে অনেক বেগ পেতে হয়।

ঘাট এলাকায় শতাধিক মালবাহী ট্রাক রয়েছে পারাপারের অপেক্ষায়। এগুলোকে অন্যপথে চলাচলের জন্য বলা হয়েছে।

বিআইডব্লিউটিএ’র শিমুলিয়া ঘাটের নৌ-ট্রাফিক পরিদর্শক তোফাজ্জল হোসেন জানান, ফেরি বন্ধ থাকলেও লঞ্চ চলাচল স্বাভাবিক রযেছে।

দ্য রিপোর্ট

Comments are closed.