যুবককে শিকলে বেধে নির্যাতনের ঘটনায় টঙ্গীবাড়ীতে মামলা

মামলা সংক্রান্ত বিরোধের জের ধরে টঙ্গীবাড়ী উপজেলার পাচঁগাওঁ গ্রামে এক যুবককে শিকলে বেধে নির্যাতনের ঘটনায় মুন্সীগঞ্জ আদালতে মামলা দায়ের করা হয়েছে। সোমবার নির্যাতিত আরিফ বেপারী পিতা আবু সিদ্দিক বেপারী বাদী হয়ে মুন্সীগঞ্জ আদালতে সি.আর ৯৫/১৫ মামলা দায়ের করেন। মুন্সীগঞ্জ আমলী আদালত ৪ এর বিচারক ওমা রাণী দাস মামলাটি টঙ্গীবাড়ী থানাকে তদন্ত করে প্রতিবেদন দেওয়ার জন্য আদেশ দিয়েছেন।

এর আগে ৩১ আগষ্ট সোমবার রাতে পাচঁগাওঁ গ্রামের আবু সিদ্দিক বেপারীর ছেলে আরিফ বেপারীকে শিকল দিয়ে ঘরের খামের সাথে বেধে পিটিয়ে মাথায় ও শরীরে জখম করে পরে পুলিশ খবর দিয়ে ধরিয়ে দেয় তার শশুর বাড়ির লোকজন।

জানাগেছে, উপজেলার পাঁচগাঁও গ্রামের সামাদ বেপারীর মেয়ে সুইটি আক্তার (১৯) এর সাথে একই গ্রামের আবু সিদ্দিক বেপারীর ছেলে আরিফ বেপারীর গত ৪ই আগষ্ট ২০১৪ইং তারিখে প্রেমের সম্পর্ক হয়ে বিয়ে হয়। বিয়ের পর হতে তাদের দাম্পত্য জীবনে কলহ চলে আসছিলো। পরে তুচ্ছ ঘটনাকে কেন্দ্র করে গত ১৬ই জুলাই ২০১৫ইং তারিখে সুইটি বাদী হয়ে মুন্সীগঞ্জ আদালতে পিটিশন মামলা নং-১৫৭/২০১৫ দায়ের করে। ওই মামলায় আদালত আরিফ এর বিরুদ্ধে গ্রেফতারী পরোয়ানা জারী করলে আরিফ আতœগোপন করে।

পরে সুইটি নিজ ভূলের কথা স্বীকার করে আরিফের সাথে মোবাইল ফোনে যোগাযোগ করে তাকে নিজ পিত্রগৃহে নিয়ে ঘটনার দিনে রাতে ঘরের খামের সাথে বেধে নির্যাতন করে পুলিশ খবর দিয়ে ধরিয়ে দেয়। আরিফ জানায়, তার শশুর সামাদ বেপারী, স্ত্রীর ছোট ভাই পিন্টু এবং শাশুরী লাইজু ঘরের খামের সাথে বেধে দাসা দিয়ে পিটিয়ে তাকে গুরুতর জখম করে। এ সময় সে পানি খেতে চাইলে তাকে পানি দেওয়া হয়নি বলেও জানান আরিফ।

এ ব্যাপারে টঙ্গীবাড়ী থানা এস আই হুমায়ুন কবির জানান, আমরা আরিফকে একটি বাঁশের সাথে বাধা অবস্থায় সামাদ বেপারীর বাড়িতে পাই। তার বিরুদ্ধে ওয়ারেন্ট থাকায় আমরা তাকে গ্রেফতার করে থানায় নিয়ে আসি। পরে তাকে মুন্সীগঞ্জ আদালতে প্রেরণ করা হয়।

বিক্রমপুর চিত্র

Comments are closed.