পদ্মা নদী: ‘চায়না মেজর ব্রিজ কোম্পানি করবে ড্রেজিং’

ফেরি চলাচল বন্ধের সপ্তম দিন
পদ্মা নদীর নাব্য সংকটে শিমুলিয়া-কাওড়াকান্দি নৌরুটে সপ্তম দিনের মতো বন্ধ রয়েছে ফেরি চলাচল। রুটটি স্বাভাবিক করতে বৃহস্পতিবার থেকে চায়না মেজর ব্রিজ কোম্পানি ড্রেজিং কাজ শুরু করবে।

ঘটনাস্থল পরিদর্শনে এসে নৌমন্ত্রী শাজাহান খান বুধবার এ মন্তব্য করেন। তিনি বলেন, ‘নাব্য সংকট ও ফেরি চলাচল স্বাভাবিক করতে বৃহস্পতিবার থেকে চায়না মেজর ব্রিজ কোম্পানি ড্রেজিং শুরু করবে। আমাদের কিছু ভুল ছিল। ওদের মেশিন খুব শক্তিশালী। আশা করি, অতি দ্রুত ফেরি চলাচল স্বাভাবিক হবে।’

মুন্সীগঞ্জের লৌহজং টার্নিং পয়েন্টে নদীর পানির গভীরতা কমে যাওয়া এবং তীব্র স্রোতের কারণে এ রুটে ফেরি চলাচল বন্ধ করে দেওয়া হয়। ফেরি চলাচল করতে না পারায় বুধবারও ঘাট এলাকায় পাঁচ শতাধিক ছোট-বড় যানবাহন পারাপারের অপেক্ষায় ছিল।

বাংলাদেশ অভ্যন্তরীণ নৌপরিবহন করপোরেশনের (বিআইডব্লিউটিসি) শিমুলিয়া ঘাটের উপ-ব্যবস্থাপক চন্দ্র শেখর বলেন, ‘কার্যত ফেরি চলাচল বন্ধ রয়েছে। বুধবার সকাল পর্যন্ত দু’টি ফেরি দিয়ে লোড-আনলোড হয়েছে। পানির গভীরতা পাঁচ ফুটের নিচে। আরও দ্রুত ড্রেজিং করা প্রয়োজন।’

মাওয়া নৌ-ফাঁড়ির ইনচার্জ উপ-পরিদর্শক (এসআই) মো. ইউনুস বলেন, হাইওয়েতে দক্ষিণ বঙ্গগামী নাইটকোচ বা বাস নেই। এ রুটের পরিবহন আরিচা ফেরিঘাট ব্যবহার করছে। তবে কিছু পণ্যবাহী ট্রাক রয়েছে। সেগুলোও ঘাট ছাড়তে শুরু করেছে।

দ্য রিপোর্ট

Comments are closed.