শ্রীনগরে যুবলীগ নেতার উপড় হামলা: সেচ্ছাসেবক লীগ নেতা প্রধান আসামী

আরিফ হোসেন: শ্রীনগর উপজেলা শ্যামসিদ্ধি ইউনিয়ন যুবলীগ সভাপতি আলী আকবরের উপড় হামলার ঘটনায় উপজেলা সেচ্ছাসেবক লীগের সাধারণ সম্পাদক ও সাবেক উপজেলা ছাত্রলীগ সভাপতি ওয়াহিদুর রহমান জিঠুকে প্রধান আসামী করা হয়েছে। এই মামলায় উপজেলা প্রজন্ম লীগের সাবেক সাধারণ সম্পাদক ও যুবলীগ নেতা মো: মামুন সহ আরো ৭ জনকে আসামী করা হয়েছে।

শ্রীনগর থানার অফিসার ইনচার্জ মুজিবুর রহমান জানান, আলী আকবরের ভাই জনি বাদী হয়ে শনিবার মামলাটি দায়ের করেন। তবে আজ শনিবার রাত দশটায় মামলাটির তদন্তকারী কর্মকর্তা শ্রীনগর থানার এসআই আলমগীর কবির জানান এখনো পর্যন্ত তিনি মামলার নথি হাতে পাননি। গত বুধবার দুপুর একটার দিকে উপজেলার ধাইসার এলাকায় শ্যামসিদ্ধি ইউনিয়ন যুবলীগের সভাপতি আলী আকবরের উপড় হামলার ঘটনা ঘটে।

স্থানীয়রা জানায়, শ্রীনগর-গাদিঘাট সড়কে ভটভটি চালানোকে কেন্দ্র করে পূর্ব শত্রুতার জেড় ধরে শ্যামসিদ্ধি ইউনিয়নের যুবলীগ সভাপতি মো: আলী আকবর শিকদার ( ৪০) এর উপড় এ হামলা হয়। তবে আলী আকবর শিকদারের ভাই জনি দাবী করেণ মাদকের বিরুদ্ধে অবস্থান নেওয়ায় তার ভাইয়ের উপড় হামলা হয়েছে। ওই দিন দুপুরে মোটরসাইকেল যোগে ধাইসার এলাকায় আসলে উপজেলা সেচ্ছাসেবক লীগের সাধারণ সম্পাদক ওয়াহিদুর রহমান জিঠুর নির্দেশে ওই এলাকার রকি, শাহজাহান, নিক্সন, বাবু, সুজন, রাসেল, সাজ্জাদ, মোস্তফা সহ ১৫/২০ জন তার গতিরোধ করে বেধরক মারপিট করে। আহত অবস্থায় তাকে প্রথমে উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ও পরে ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে ভর্তি করা হয়। আলী আকবরের অবস্থা এখন আশংকা মুক্ত বলে তার পারিবারিক সূত্র জানায়।

এব্যাপারে ওয়াহিদুর রহমান জিঠু জানান, তাকে পরিকল্পিত ভাবে মামলায় আসামী করা হয়েছে। তিনি ঘটনার সময় ওই স্থানে ছিলেননা। পরে এলাকাবাসীর কাছে শুনেছেন সম্প্রতি ধাইসার টেম্পু ষ্ট্যান্ডে ভটভটি চালানোকে কেন্দ্র করে বিরোধ নিয়ে সালিশ মিমাংসা হয়। সালিশ মিমাংসার কয়েকদিন পর আলী আকবরের ভাই জনি ভটভটি চালক সাজ্জাদকে মারধর করে। এঘটনার জের ধরে আলী আকবরের উপড় হামলা হয়।

Comments are closed.