সন্ত্রাসী হামলা: মুক্তারপুরে অপকর্মের হোতা সাহাবুদ্দিনের ওপর

মুন্সীগঞ্জ সদর উপজেলা বিএনপির সভাপতি মহিউদ্দিনের ম্যানেজার সাহাবুদ্দিনকে মারধর করা হয়েছে। এই সাহাবুদ্দিন মুক্তারপুর কারেন্টজাল তৈরীর বিভিন্ন ফ্যাক্টরী থেকে চাঁদা উত্তোলন করে। এই চাঁদার টাকা নিজের পকেট ভর্তি, প্রশাসনকে ম্যানেজসহ নানা অবৈধ কর্মের সঙ্গে জড়িত এই সাহাবুদ্দিন। মুক্তারপুরে সাহাবুদ্দিন বিএনপি নেতা মহিউদ্দিনের ভাগ্নে হিসেবে পরিচিত।

জানা গেছে, গতকাল বুধবার দুপুরের বিএনপি নেতা মহিউদ্দিনের মালিকাধীন মুক্তারপুরের তন্ময় সূতার আড়তে চাঁদাবাজ সাহাবুদ্দিনের ওপর হামলা চালানো হয়। মহিউদ্দিনের চাচাতো ভাই গোলাম মোস্তফার স্ত্রী ডালিয়ার নেতৃত্বে এই হামলা হয় বলে অভিযোগ উঠেছে।

সূত্র মতে, কিছুদিন আগে গোলাম মোস্তফাকে কারেন্ট জালসহ পুলিশ গ্রেপ্তার করে। ডালিয়ার ধারণা মোস্তফাকে পুলিশে ধরিয়ে দেয়ার পেছনে নানা অপকর্মের হোতা সাহাবুদ্দিনের হাত রয়েছে। এ কারণে এই হামলার ঘটনা ঘটেছে।

এদিকে, জেলা বিএনপির সভাপতি আবদুল হাই ও তার ছোট ভাই সদর উপজেলা বিএনপির সভাপতি মহিউদ্দিনের সঙ্গে ফকির পরিবারের আরেক সদস্য তাদের চাচাতো ভাই গোলাম মোস্তফার বিরোধ চলে আসছিল। এই মোস্তফাও পঞ্চসার-মুক্তারপুর শিল্পাঞ্চল এলাকার এক কুখ্যাত চাঁদাবাজ। সেখানে কারেন্টজাল ফ্যাক্টরীগুলোতে এককভাবে মেশিন সাপ্লাই দিয়ে থাকেন। অপর কেউ এ ব্যবসায় চালালে তাকে বিনা পুঁজিতে চাঁদা দিতে হয়।
এদিকে, এ হামলার ঘটনায় থানায় পাল্টাপাল্টি মামলা এন্ট্রির তদবির চলছে।

রামপাল নিউজ

Comments are closed.