কাজীকসবায় ডাকাতির স্বীকার পরিবার চরম আতঙ্কে

মুন্সীগঞ্জে ডাকাতির স্বীকার এক পরিবার এখন চরম অতঙ্কে দিন কাটাচ্ছে। গত ১৩ জুলাই রোববার রাত আনুমানিক ১ টা ৩০ মিনিটে মুন্সীগঞ্জ সদর উপজেলার রামপাল ইউনিয়নের উত্তর কাজীকসবা গ্রামের স্বপন শেখ এর বাড়ীতে দুর্ধষ ডাকাতি সংগঠিত হয়। অস্ত্রের মুখে জিম্মি করে স্টীলের আলমারি ভেঙ্গে ব্যবসার নগদ ৩ লাক্ষ টাকা ও ৭ ভর্রি স্বর্ণ লুটে নেয় ডাকাতদল । এসময় ডাকাত দলের সদস্যদের চিনে ফেলায় চরম আতঙ্কে দিন কাটাতে হচ্ছে ক্ষতিগ্রস্থ পরিবারটিকে। এঘটনায় স্বাপন শেখ বাদী হয়ে সদর থানায় একটি মামলা দায়ের করেছে। যার মামলা নং ২৭(৭) ২০১৫।

ডাকাতির স্বীকার ব্যবসায়ী স্বপন শেখ বলেন, আমাদের একই গ্রামের আক্কাস শেখ এর ছেলে ইমান শেখ (৪৫) ও তার শ্যালক আলমগীর হোসেন (৩০) সহ অজ্ঞাত আরো ১০-১২ জনের একটি সংগবদ্ধ ডাকাত দল হঠাৎ করে রাত দেরটার দিকে ঘরে প্রবেশ করে । প্রথমে আমার বড় বোন মাহমুদা বেগম (২৭)কে অস্ত্রের মুখে জিম্মি করে সংগবদ্ধ ডাকাতদলটি ঘরে ভিতরে থাকা অন্যসদস্যদের হাত-পা বেঁধে ফেলে । পরে স্টীলের আলমারি ভেঙ্গে ব্যবসার নগদ ৩ লাক্ষ টাকা ও ৭ ভর্রি স্বর্ণ লুটে নেয়। এ ঘটনায় মামলা হলেও আসামীদের গ্রেফতারে তেমন কোন ব্যবস্থা নেয়নি প্রশাসন।

তিনি আরো জানান,ডাকাদের বিরুদ্ধে থানায় মামলা করে চরম আতঙ্কে দিন কাটতে হচ্ছে । বিভিন্ন ভাবে প্রানে মেরে ফেলার হুমকি দিয়ে আসছে ডাকাত দলটি।

স্থানীয়রা জানান, ডাকাতির সাথে জড়িতরা স্বীকার করে গ্রামের শালীশি বৈঠকে মিমাংশার চেষ্টা করা হয়। এতে ডাকাতদলের সদস্যরা শালীশি বৈঠকে উপস্থিত হয়নি। পরে স্বাপন শেখ আইনের সহযোগিতা নেন ।

এব্যাপারে মামলার তদন্ত কারী কর্মকর্তা হাতিমাড়া ফাড়ির ইনর্চাজ বিকাশ চন্দ্র সরকার বলেন, মামলার পরে থেকে আসামীদের গ্রেফতারের চেষ্টা চলছে। তবে হুমকির ঘটনাটি মিথ্যা ও বানোয়াট ।

বাংলা সংবাদ

Comments are closed.