অতিরিক্ত যাত্রী নিয়ে চলছে বাসগুলো ঢাকা মুখী

শিমুলিয়া ঘাটে ঢাকামুখী যাত্রীরা চরম দুর্ভোগে
মোঃ রুবেল ইসলামঃ ঈদের শেষে ভারি বর্ষন আর প্রবল ঝড়কে ওপেক্ষা না করে,দক্ষিণ-পশ্চিমাঞ্চলের ২১ জেলার ঘরমুখো হাজার হাজার মানুষের ঢল নেমেছে ফের ঢাকা মুখী শিমুলিয়া ঘাটে। নিজ কর্মের টানে শিমুলিয়া ঘাট হয়ে ছুটে চলছেন নিজ গন্তব্যে। আজ সোমবার সকাল থেকো দিনভর এসব ঘরমুখো মানুষের চাপ থাকবে অন্যদিকে সকাল থেকে শিমুলিয়া-কাওড়াকান্দিও শিমুলিয়া-মাঝিকান্দি নৌপথে লঞ্চ, ট্রলারও স্পীডবোটসহ প্রতিটি নৌযানে ছিল যাত্রীদের আগে ওঠার প্রতিযোগীতা শিমুলিয়া ঘাটে।

এ সময় বাঁধভাঙা জোয়ারের মতো শিমুলিয়া কাওড়াকান্দি নৌরুটের পদ্মা পাড়ি দিতে হুমড়ি খেয়ে পড়েছেন ঢাকাগামী বিপুল সংখ্যক যাত্রী। ফলে শিমুলিয়া ও কাওড়াকান্দি ঘাটে দীর্ঘ জনজটের সৃষ্টি হলে চরম দুর্ভোগের স্বীকার হন যাত্রীরা। শিমুলিয়া কাওড়াকান্দি নৌরটের ফেরী ও লঞ্চে ছিল যাত্রীদের উপচে পড়া ভীড়।একই চিত্র ঢাকা মাওয়া মহাসড়কের প্রতিটি বাস পরিবহনগুলোতে।এতে করে নৌ ও সড়কপথে ঝুঁকিপূর্ণভাবে অভারলোডিং যান চলাচল ছিল চোখে পড়ার মতো।

সরেজমিনে গিয়ে দেখা গেছে, শিমুলিয়া-কাওড়াকান্দিও শিমুলিয়া মাঝিকান্দি নৌপথে লঞ্চ, ট্রলার ও স্পীডবোটসহ প্রতিটি নৌযানে ছিল উপচে পড়া ভীড়। ঝুঁকিপূর্ণভাবে ধারণক্ষমতার অতিরিক্ত যাত্রীবোঝাই করে মাদারীপুরের কাওড়াকান্দি,শরীয়তপুরের মাঝিকান্দি থেকে শিমুলিয়া-(মাওয়ার) দিকে ছেড়ে আসছিল প্রতিটি নৌযান। নৌরুটের কাওড়াকান্দি থেকে ছেড়ে আসা ডাম্পু, ফ্লাটসহ প্রতিটি ফেরীতে তিল ধারণের জায়গা ছিল না। পদ্মা পাড়ি দিয়ে আসা হাজার-হাজার যাত্রীর চাপে মাওয়া ঘাট টার্মিনালে তীব্র জনজটের সৃষ্টি হয়।

ঢাকা-মাওয়া মহাসড়কের প্রায় প্রতিটি পরিবহন কাউন্টারে যাত্রীদের দীর্ঘ লাইন দেখা দেয়। ভারি বর্ষন আর প্রবল ঝড়কে ওপেক্ষা না করে প্রচন্ড বৃষ্টির মধ্যেই ঘন্টার পর ঘন্টা গাড়ীর অপেক্ষায় শিশু-মহিলা-বৃদ্ধসহ অসংখ্য যাত্রী চরম দুর্ভোগে পড়েন। এ সময় পরিবহন সঙ্কটের সুযোগে মাওয়া থেকে গুলিস্তান ও মাওয়া থেকে যাত্রাবাড়ী পর্যন্ত সিটিং সার্ভিস কাউন্টারভিত্তিক পরিবহনগুলো ৭০টাকার স্থলে ১০০টাকা এবং লোকাল পরিবহনগুলো ছাদে ৫০ টাকা এবং ভেতরে নির্ধারিত ভাড়ার অতিরিক্ত ১শ’ টাকা ভাড়া আদায় করে চলেছে।পাশাপাশি যাত্রীবাহী বাসের ভেতরে দাঁড়িয়ে ও ছাদে ঝুঁকিপূর্ণভাবে ধারণ ক্ষমতার অতিরিক্ত যাত্রী নিয়ে ঢাকার উদ্দেশ্যে ছেড়ে গেছে বেশকিছু পরিবহন। এতে করে সড়কও নৌপথে চরম দুর্ভোগে পড়েন কর্মস্থলে ফেরা এসব যাত্রী।

Comments are closed.