মিরপুরে রিজার্ভ ট্যাংকে নারীর মরদেহ, স্বামী আটক

রাজধানীর মিরপুর ১ নম্বরের শাহ আলীতে পানির রিজার্ভ ট্যাংক থেকে বৃষ্টি (২২) নামে এক নারীর গলিত মরদেহ উদ্ধার করেছে পুলিশ। শাহ আলী থানার গুদারাঘাট ব্লক-এইচ, রোড ৫/১, হাউজ-৬/৭ থেকে রোববার দিনগত রাতে (২৮ জুন) ওই নারীর মরদেহ উদ্ধার করা হয়।

এ ঘটনায় নিহত বৃষ্টির স্বামী মো. মহিউদ্দিনকে আটক করেছে শাহ আলী থানা পুলিশ।

শাহ আলী থানার উপপরিদর্শক (এসআই) আবদুল হামিদ জানান, তিনদিন আগে বৃষ্টিকে শ্বাসরোধে হত্যা করে পানির ট্যাংকে ফেলে রাখা হয়েছে বলে ধারণা করা হচ্ছে।

ইতোমধ্যে মরদেহে পচন ধরেছে। খবর পেয়ে মরদেহ উদ্ধার করে ময়না তদন্তের জন্য ঢাকা মেডিকেল কলেজ (ঢামেক) হাসপাতাল মর্গে পাঠানো হয়েছে।

ঘটনার রহস্য উদঘাটনে আটক মহিউদ্দিনকে জিজ্ঞাসাবাদ করা হচ্ছে বলেও জানান এসআই আবদুল হামিদ।

মৃত নারীর চাচা ইসরাফিল বাংলানিউজকে জানান, গত শনিবার থেকে বৃষ্টি নিখোঁজ হয়। বারবার তার স্বামী মহিউদ্দিনকে জিজ্ঞাসা করলে সে জানায়, বৃষ্টি আমার সঙ্গে ঝগড়া করে গ্রামের বাড়ি চলে গেছে।

মরদেহ উদ্ধারের খবর পেয়ে আমি টঙ্গী থেকে শাহ আলীতে মহিউদ্দিনের বাসায় যাই। ভাতিজীকে হত্যা করা হয়েছে বলে অভিযোগ করেন তিনি।

এ হত্যাকাণ্ডে স্বামী ছাড়াও বৃষ্টির দেবর, চাচা শ্বশুর, শাশুড়ি জড়িত বলেও অভিযোগ করেন তিনি। তবে কী কারণে হত্যা করা হয়েছে তা জানাতে পারেননি চাচা ইসরাফিল।

নিহত বৃষ্টির বাড়ি মুন্সীগঞ্জ জেলার লৌহজং থানার হরিয়া গ্রামে। ৬ বছর আগে বৃষ্টির বিয়ে হয়। তাদের ১১ মাস বয়সী একটি ছেলে সন্তান রয়েছে।

বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর

Comments are closed.