হত্যা চেষ্টা: রাঙামাটিতে ব্যবসায়ীকে ডেকে নিয়ে হত্যার চেষ্টা

কাঠ বিক্রির কথা বলে এক আসবাবপত্র ব্যবসায়ীকে ডেকে নিয়ে হত্যা চেষ্টার অভিযোগ পাওয়া গেছে। প্রাণে বেচে যাওয়া কবির বেপারীকে বুধবার প্রথমে রাঙামাটি জেনারেল পরে চট্টগ্রাম মেডিকেলে প্রেরণ করা হয়েছে। এই ঘটনার জড়িত থাকার অভিযোগে মো. বাবু ও অলি আহম্মদ নামে দু’জনকে আটক করেছে পুলিশ।

পুলিশ জানায়, ঘটনার শিকার কবির মুন্সিগঞ্জ জেলা সদরের এমরান বেপারীর ছেলে। প্রায় ৬ মাস আগে রাঙামাটি শহরের কলেজ গেটে একটি দোকান ভাড়া নিয়ে আসবাবপত্র ব্যবসা করে আসছিলেন তিনি।

বুধবার রাঙামাটি জেনারেল হাসপাতালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় কবির সাংবাদিকদের বলেন, তাদের মুন্সিগঞ্জে দুর সম্পর্কীয় আত্মীয় বাবু তার কাছে চিড়াই কাঠ আছে বলে সেগুলো দেখানোর জন্য মঙ্গলবার বিকেল ৪টার দিকে শহরের বাস টার্মিনালে শান্তি নগরে নিয়ে যায়। সেখানে গিয়েই অলিসহ আরো কয়েকজন তাকে জোর করে বোটে তুলে নিয়ে সুবলংয়ের দিকে যায়। বোটে তাকে হাত পা বেধে ব্যাপক মারধর করা হয়। এক পর্যায়ে বোট থেকে নামিয়ে একটি দ্বীপে গলায় রশি পেঁচিয়ে হত্যার চেষ্টা করা হয়। পরে তিনি জ্ঞান হারিয়ে ফেললে মরে গেছে মনে করে তাকে ফেলে আসে। মঙ্গলবার সারা রাত জঙ্গলে থাকার পর বুধবার সকালে জ্ঞান ফিরলে এক চাকমা বোট চালকের সহায়তায় রাঙামাটি হাসপাতালে ভর্তি হন। তার গলায় মারাত্মক জখম হওয়ায় চিকিৎসকরা চট্টগ্রামে প্রেরণ করে।

স্থানীয়রা বলছেন এই চক্রটি পাহাড়ি অধ্যুষিত এলাকায় হত্যাকাণ্ড ঘটিয়ে পরিস্থিতি ঘোলাটে করার অপচেষ্টা করেছে।

রাঙামাটি কোতয়ালী থানার এসআই লিমন জানান, বিষয়টি তারা গুরুত্বসহকারে দেখছেন। এখনও মামলা হয়নি। মামলা হবে। কবির সুস্থ হলে ঘটনা বিস্তারিত জানা যাবে। ঘটনার জড়িত থাকার অভিযোগে বাবু ও অলি নামে দু’জনকে আটক করা হয়েছে। অলি আহম্মদের বাড়ি শহরের শান্তি নগরে।

মানবকণ্ঠ

Comments are closed.