টঙ্গীবাড়ীর বিদুৎ গ্রাহকরা চরম দূর্ভোগে

পল্লি বিদ্যুৎতের স্বেচ্ছাচারিতা
টঙ্গীবাড়ী পল্লি বিদ্যুৎ সমিতির স্বেচ্ছাচারিতা ও অবহেলার কারনে বিদ্যুৎ গ্রাহকদের চরম দূর্ভোগ পোহাতে হচ্ছে। প্রত্যন্ত অঞ্চলে বিদ্যুৎ লাইনে ছোটখাট ত্রুটি ঘটে বিদ্যুৎ বন্ধ হয়ে গেলে দিনের পর দিন পল্লি বিদ্যুৎ সমিতিতে অভিযোগ করেও বিদ্যুৎ সরবারহ করাতে পারছেনা বিদ্যুৎ গ্রাহকরা। ইফতার, সেহেরী এমনকি তারাবির সময় টঙ্গীবাড়ী উপজেলার অধিকাংশ অঞ্চল বিদ্যুৎ বিচ্ছিন্ন থাকায় ক্ষোভে ফেসেঁ উঠেছে এলাকার জনগণ। উপজেলার চাঠাতি পাড়া গ্রামের দুই গৃহবধূ ২ দিন যাবৎ বিদ্যুৎ না পেয়ে বুধবার সকাল ১১টার দিকে দু-হাত তুলে আল্লাহ্র কাছে পল্লি বিদ্যুৎ কর্মচারীদের বিচার দাবী করতে দেখা গেছে। একাধিকবার পল্লি বিদ্যুৎ সমিতির লোকজনের কাছে অভিযোগ করে বিদ্যুৎ না পেয়ে ক্ষুদ্ধ এই দুই গৃহবধূ অভিসম্পাত করছে।

উপজেলার হাসাইল, খলাঁগাও, ভাংগনিয়া, সাতুল্লা, দশত্তর, পাচঁগাওঁ, মান্দ্রা, পোদ্দারপাড়া, যোগানিয়া, কাইচমালধা, দশত্তর,চিত্রকড়াসহ উপজেলার প্রত্যন্ত অঞ্চলের অধিকাংশ গ্রামে সোমবার রাত সাড়ে ১০টা হতে বুধবার দুপুর ১টা পর্যন্ত বিদ্যুৎ বিচ্ছিন্ন রয়েছে। এতে ফ্রিজে সংরক্ষিত খাদ্য দ্রব্য নষ্ট হওয়ার উপক্রম হয়েছে। এ ব্যাপারে টঙ্গীবাড়ী উপজেলা পল্লি বিদ্যুৎ সমিতির ইঞ্জিনিয়ার সেলিম এর মোবাইলে একাধিকবার ফোন করলেও সে ফোন রিসিভ করেনি।

টঙ্গীবাড়ী পল্লি বিদ্যুৎ সমিতি অফিস সুত্রে জানাগেছে, টঙ্গীবাড়ী উপজেলা পল্লি বিদ্যুৎ এখোন নিয়ন্ত্রিত হচ্ছে ইন্সপেকটর ওয়াজেদ এর মাধ্যমে। সম্প্রতি টঙ্গীবাড়ীতে যোগদান করা ডিজিএম আবু সালেহ্ এর অযোগ্যতার কারনেই বিদ্যুৎ ঘাটতি না থাকা সত্বেও টঙ্গীবাড়ীর গ্রাহকরা বিদ্যুৎ সুবিধা হতে বঞ্চিত হচ্চে বলে পল্লি বিদ্যুৎ অফিস সুত্রে জানাগেছে।

এ ব্যাপারে টঙ্গীবাড়ী পল্লি বিদ্যুৎ সমিতির ডিজিএম আবু সালেহ্ এর সাথে যোগাযোগ করা হলে সে জানায়, বিদ্যুৎ ত্রুটি দেখা দিলে ওই এলাকার জনগন পল্লি বিদ্যুৎ সমিতি অফিসে সময় মতো অভিযোগ না করায় গ্রাহকরা সাময়িক বিরম্বনার শিকার হচ্ছে।

বিক্রমপুর চিত্র

Comments are closed.