ফের প্রায় ১৫ লাখ ৬৫ হাজার মিটার কারেন্টজাল জব্দ

সুমিত সরকার সুমন: মুন্সীগঞ্জ সদর উপজেলার পঞ্চসার ইউনিয়নে অভিযান চালিয়ে নিষিদ্ধ ১৫ লাখ ৬৫ হাজার মিটার কারেন্টজাল জব্দ করে। এসময় ২ টি কারখানাকে সিলগালা করা হয়।

বৃহস্পতিবার দুপুর ২টা থেকে বিকেল ৪টা পর্যন্ত পঞ্চসার ইউনিয়নের মুক্তারপুর শহরস্থ এলাকার ৪ টি কারখানায় অভিযান পরিচালনা করা হয়।

এ অভিযানে নির্বাহি ম্যাজিষ্ট্রেট বিজন কুমার সিংহ নেতৃত্ব দিয়েছেন। এ সময় উপস্থিত ছিলেন র‌্যাব-১১’র এ এস পি,উপজেলা জেলা মৎস্য কর্মকর্তা শাহজাদা খসরুসহ অন্যান্য কর্মকর্তা কর্মচারীবৃন্দ।

জেলা মৎস্য কর্মকতা শাহাজাদা খসরু জানান, র‌্যাব-১১ (সিপিসি-১), পুলিশ, উপজেলা মৎস অধিদপ্তর ও জেলা মেজিস্ট্রেটের সমন্বয়ে প্রায় ২ ঘন্টা অভিযান চালিয়ে এসকল নিসিদ্ধ জাল উদ্ধার করা হয়। ৪ টি কারখানার মধ্যে সততা এন্টার প্রাইজ, সিফাত এন্টারপ্রাইজকে সিলগালা করা হয়। অপর আল-আমিন ফিশিং নেট ও জুয়েল ফিশিং নেট নামের কারখানাকে ১০ হাজার টাকা করে জরিমানা করে।

র‌্যাব-১১(সিপিসি-১) নারায়ণগঞ্জ কালিবাজার ক্যাম্পর এএসপি অভিযানের সত্যতা স্বীকার করে জানান, উদ্ধারকৃত নিসিদ্ধ প্রায় ১৫ লাখ ৬৫ হাজার মিটার কারেন্ট জাল পরবর্তীতে মুক্তারপুর এলাকার পুড়ে ফেলা হয়।

বিডিলাইভ
================

ফের মুন্সীগঞ্জে কারেন্টজাল তৈরী কারখানা সিলগালা, জরিমানা: ১৬ লাখ মিটার জাল জব্দ

মুন্সীগঞ্জের পঞ্চসার ইউনিয়নে আবারো নিষিদ্ধ কারেন্টজাল প্রস্তুতকারক কারখানায় অভিযান চালিয়ে ২ টি কারখানা সিলগালা ও ৪ টি প্রতিষ্ঠানকে জরিমানা করেছে যৌথবাহিনী। এসময় কারেন্টজাল তৈরীর ২৬টি মেশিন ও ১৫ লাখ ৯৫ হাজার মিটার কারেন্টজাল জব্দ করা হয়েছে।

বৃহস্পতিবার বেলা ১১ টা থেকে বিকেল সোয়া ৩ টা পর্যন্ত ইউনিয়নের মুক্তারপুর, নয়াগাঁও ও মিরেশ্বরাই এলাকায় র‌্যাব-১১ অভিযান চালিয়ে এসব কারেন্টজাল তৈরীর ফ্যাক্টরী সিলগালা, জরিমানা ও কারেন্টজাল জব্দ করা হয়। পরে মুক্তারপুর এলাকার গোসাইবাগ এলাকায় জব্দকৃত কারেন্টজাল পুড়ে ফেলা হয়।

র‌্যাব-১১ (সিপিসি-১) নারায়ণগঞ্জ ক্যাম্প সূত্র থেকে জানা যায়, পঞ্চসার ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান হাবিবুর রহমানের নয়াগাঁও ও মিরেশ্বরাই বাস্তুহারা নামক এলাকার সিফাত ফিশিং নেট ও সততা এন্টারপ্রাইজ (সততা ফিশিং নেট)। এই ২টি কারখানাকে ১০ হাজার টাকা করে মোট ২০ হাজার টাকা জরিমানা ও সিলগালা করে দেয়। এবং সততা ফিশিং নেট ফ্যাক্টরী থেকে ৬০ হাজার মিটার কারেন্টজাল ও সিফাত ফিশিং নেট ফ্যাক্টরী থেকে ১৩ টি কারেন্টজাল তৈরীর মেশিন ও ১ লাখ ৫ হাজার মিটার কারেন্টজাল জব্দ করা হয়েছে।

এছাড়াও মুক্তারপুরস্থ গোসাইবাগ এলাকায় আল-আমিন ফিশিং নেট ফ্যাক্টরীকে ১০ হাজার টাকা জরিমানা, ১৩ টি কারেন্টজাল তৈরীর মেশিন ও ৬৫ হাজার মিটার কারেন্টজাল জব্দ, জুঁই ফিশিং নেট ফ্যাক্টরীকে ১০ হাজার টাকা জরিমানা ও ফ্যাক্টরী থেকে ১৩ লাখ ৬৫ হাজার মিটার কারেন্টজাল জব্দ করা হয়েছে।

র‌্যাব-১১’র কমান্ডার (নারায়নগঞ্জ) আলেপ উদ্দিন আপেল জানান, পঞ্চসার এলাকায় দীর্ঘদিন ধরে অবৈধ কারেন্টজাল তৈরীর ব্যবসা চলে আসছে। এর আগেও সেখানে সিলগালা, জরিমানা ও কারেন্টজাল জব্দ করা হয়েছে। সে অভিযানের ধারাবাহিকতার অংশ হিসেবে আজ বৃহস্পতিবার বেলা ১১ টা থেকে বিকেল সোয়া ৩ টা পর্যন্ত মুন্সীগঞ্জের নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট বিজন কুমার সিংহের নেতৃত্বে অভিযান চলে। এ সময় ভ্রাম্যমাণ আদালত বসিয়ে ২ টি অবৈধ কারেন্টজাল তৈরীর ফ্যাক্টরী সিলগালা, ৪ টি ফ্যাক্টরীকে জরিমানা, কারেন্টজাল তৈরীর ২৬টি মেশিন ও ১৫ লাখ ৯৫ হাজার মিটার কারেন্টজাল জব্দ করা হয়েছে। পরে জব্দকৃত কারেন্টজাল পুড়িয়ে বিনষ্ট করা হয়েছে।

শীর্ষ নিউজ

Comments are closed.