কথিত সম্পাদকসহ ৩ জনের বিরুদ্ধে সদর থানায় মামলা

মুন্সীগঞ্জে চাদাঁবাজির অভিযোগ
শেখ মো. রতন:
কাজের মেয়ে হত্যা মামলার আসামী ও একটি অখ্যাত পত্রিকার সম্পাদক পরিচয় দেওয়া আরফিন মোল্লাসহ ৩ জনের নামে চাদাঁবাজির অভিযোগে মামলা রুজু করা হয়েছে।

বৃহস্পতিবার মধ্য রাতে মুন্সীগঞ্জ সদর থানায় এ চাদাঁবাজির মামলা দায়ের করেন মুন্সীগঞ্জ প্রেসক্লাবের যুগ্ন সম্পাদক ও সমকালের মুন্সীগঞ্জ প্রতিনিধি মো: মামুনুর রশীদ খোকা।

সংবাদ প্রকাশের হুমকি দিয়ে চাদাঁবাজির হোতা আরফিন মোল্লা ছাড়াও এ মামলায় আসামী করা হয়েছে রবিউল ইসলাম ও মাসুদ রানা নামে তার সহযোগী।

এদিকে দাবীকৃত করা চাদাঁ না দিলে হত্যার হুমকির ঘটনায় মুন্সীগঞ্জ প্রেসক্লাবের সভাপতি শহীদ ই হাসান তুহিন ও সাধারণ সম্পাদক কাজী সাবিবর আহমেদ দীপু উদ্বেগ প্রকাশ করেছেন। এছাড়া অবিলম্বে চাদাঁবাজি মামলার আসামী আরফিন মোল্লাসহ অপর আসামীদের গ্রেফতার ও শাস্তির দাবী জানিয়েছেন মুন্সীগঞ্জের সকল সাংবাদিক সমাজ।

মামলার বাদী মামুনুর রশীদ খোকা লিখিত এজাহারে জানান, পূর্ব শত্রুতার জের ধরে গত ১০ মে মুন্সীগঞ্জ জেনারেল হাসপাতালের প্রধান ফটকের সামনে মুন্সীগঞ্জ প্রেসক্লাবের যুগ্ন সম্পাদক মো. মামুনুর রশীদ খোকাকে পথরোধ করে দুই লাখ টাকা চাদাঁ দাবী করে। এ সময় হত্যা মামলার আসামী মো. আরফিন মোল্লার নেতৃত্বে ৩ জন দাবী করা চাদাঁ না দিলে তোর নামে জেলা থেকে প্রকাশিত দৈনিক মুন্সীগঞ্জের কাগজসহ বিভিন্ন পত্রিকায় মিথ্যা সংবাদ পরিবেশনের হুমকি দেয় এবং শারিরিক ভাবে লাঞ্ছিত করে।

এমনকি আগামী তিন দিনের মধ্যে দাবী করা দুই লাখ টাকা চাদাঁ না দিলে হত্যার পর লাশ গুম করে ফেলবে বলে হুমকি দিয়ে গেছে। প্রতিয়িনত মোবাইলে হুমকির দেওয়ায় ঘটনার পর থেকে মুন্সীগঞ্জ প্রেসক্লাবের যুগ্ন সম্পাদক মামুনুর রশীদ খোকা পরিবার পরিজন নিয়ে নিরাপত্তাহীনতায় রয়েছে।

মুন্সীগঞ্জ জেলার স্থানীয় সাংবাদিকরা জানান, দৈনিক মুন্সীগঞ্জের কাগজ নামে একটি পত্রিকার ডিকলারেশন পায় মোহম্মদ আরফিনের স্ত্রী হিমা বেগম সম্পাদক ও প্রকাশক হিসেবে। পরবর্তীতে সম্পাদক ও প্রকাশক হিমা বেগমকে পত্রিকার প্রিন্টার্স লাইন থেকে বাদ দিয়ে গত কয়েক বছর ধরে পত্রিকার প্রিন্ট লাইনে নিজের নাম ব্যবহার করে সম্পাদক বনে গেছেন। অনিয়মিত ভাবে মাত্র শতাধিক পত্রিকার প্রকাশ করা হয়। যা অনিয়মতান্ত্রিক। তার শিক্ষাগত যোগ্যতা আন্ডার মেট্রিক। ডিগ্রিপাশের নিচে কেউ পত্রিকার সম্পাদক হিসেবে ডিক্লারেশন পেতে পারে না।

এ প্রসঙ্গে সদর থানার অফিসার্স ইনচার্জ (ওসি) মো: ইউনুচ আলী জানান, আরফিন মোল্লাসহ চাদাঁবাজি মামলার ৩ আসামীকে গ্রেফতারের চেষ্টা চলছে। পুলিশের একাধিক টিম তাদের খুজেঁ বেড়াচ্ছে।

Comments are closed.