বঙ্গবন্ধু থেকে টিউলিপ, বাংলাদেশ থেকে বৃটেন

বঙ্গবন্ধু দীর্ঘ ২১ বছর আন্দোলন, সংগ্রাম এর মাধ্যমে আমাদের স্বাধীনতা এনেদিয়ে ছিলেন । আন্তর্জাতিক অঙ্গনে আমাদের জাতীকে প্রতিষ্ঠিত করেছেন স্বাধীন জাতী হিসেবে। তারই ধারাবাহিকতায় আমাদের প্রধানমন্ত্রী জননেত্রী শেখ হাছিনা নিরলস পরিশ্রম করে আমাদের মাতৃভাষাকে আন্তর্জাতিক মাতৃভাষার স্বীকৃতি এনেদিয়ে আন্তর্জাতিক অঙ্গনে আমাদের মর্যাদা আরও বৃদ্ধি করেছেন ।

সবশেষ যুক্তরাজ্য সাধারন নির্বাচনে টিউলিপ সিদ্দিক লেবার দলের হয়ে অংশ গ্রহন করে বিপুল ভোটে জয়লাভ করে এম পি নির্বাচিত হয়। এতে করে সারা বিশ্ব কে জানিয়ে দিয়েছেন বাংলাদেশের মানুষ শুধু বাংলাদেশেই না সারা পৃথিবীকে সাশন করার যোগ্যতা রাখে। মহান বৃটেনের জনগন তার উপর আস্থা রেখেছে এবং বিশ্বাস করেছে।

বৃটিশরা আমাদের ২৫০ বছর শাসন ও শোষন করে সভ্যতার কথা বলে আমাদের সারা জীবন বোকা বানানোর বৃথা চেস্টা করেছে এবং তাদের সকল চেস্টা বিফলে গেছে । দীর্ঘ বছর পরে হলেয় ২০১৫ সালের যুক্তরাজ্য সাধারন নির্বাচনে আমাদের গর্বের ধন টিউলিপের ঐতিহাসিক জয়ের মাধ্যমে আমরা আমাদের যোগ্যতা প্রমান করতে সক্ষম হয়েছি । আর বাংলাদেশে নিন্দুকদের চোখে আংগুল দিলে দেখিয়ে দিয়েছি যে, আমরা আওয়ামী পরিবার পৃথিবীর যে প্রান্ত হোকনা কেন সত্য প্রতিষ্ঠিত করতে দ্বিধা বোধ করিনা।

বঙ্গবন্ধু থেকে টিউলিপ পর্যন্ত শেখ পরিবারের পতিটি সদস্যই আমাদের আস্থার শেষ আবাস্থল । বাংলাদেশ হোক, আর বৃটেন হোক আমরা সব খানেই সুসংগঠিত এবং শক্তিশালী ।

টিউলিপ ব্যক্তিগত জীবনে অত্যন্ত ভাল মনের মানুষ, বিনয়ী, আন্তরিক এবং অধিক পরিশ্রমী । অনেকে বলে রাজনৈতিক ব্যক্তিদের সন্তানের সুযোগ সন্ধানী হয়, কিন্তু আমি যতটুকু দেখেছি তাতে হলফ করে বলতে পারি টিউলিপকে দেখলে যে কার ধারনা বদলে যাবে।

রনি হোসাইন
সহ-সভাপতি
যুক্তরাজ্য ছাএলীগ ।

Comments are closed.