শ্রীনগরে বাসের চাপায় নিহত ৩ জনের দাফন সম্পন্ন

শোকের ছায়া
বাসের চাপায় নিহত ৩ জনের দাফন সম্পন্ন শ্রীনগরের রাঢ়িখাল ইউনিয়নের কবুতর খোলা গ্রামে চলছে শোকের মাতম। তরতাজা তিনটি যুবক এভাবে হারিয়ে যাবে কেউ যেন মেনে নিতে পারছে না। শোক সমÍপ্ত পরিবারকে শান্তনা দেওয়ার ভাষাও যেন হারিয়ে ফেলেছে সবাই। আকাশ বাতাস যেন শোকের ছায়ায় ভারি হয়েগেছে। গতকাল ঢাকা-মাওয়া মহাসড়কের সমষপুর বাসষ্ট্যান্ড এলাকায় বাসের চাপায় পিষ্ট হয়ে মোটর সাইকেল আরোহী ৩ যুবকের মৃত্যু হয়েছে। আজ সকাল ১০ টায় সিফাত ও সায়মন এবং গতকাল রাত ৯ টায় ওমর ফারুক কে কবুতর খোলা কবরস্থানে দাফন করা হয়।

রবিবার বেলা পৌনে ৩ টায় ঢাকা থেকে মাওয়া গামি সার্বিক পরিবহনের একটি বাস শ্রীনগর গামি মোটর সাইকেল চাপা দিয়ে প্রায় দের শত গজ ছেঁচরিয়ে নিয়ে যায়। এসময় ওমর ফারুক (২৪) ঘটনাস্থলে নিহত হয়। অপর দুইজন সিফাত (২০) ও সায়মন (২১) ঢাকা মেডিকেলে নেওয়ার পর মারা যায়। নিহত ৩ জনের বাড়ি শ্রীনগর উপজেলার রাঢ়িখাল ইউনিয়নের কবুতর খোলা গ্রামে। ওমর ফারুকের পিতার নাম রফিক কাড়াল, সিফাতের পিতার নাম উমর আকন ও সাইমনের পিতার নাম কালাই হালাদার। মর্মান্তিক এই দূর্ঘটনায় এলাকায় শোকের ছায়া নেমে এসছে।

গতকাল শ্রীনগর থানার ওসি মুজিবুর রহমান জানিয়েছেন, সিফাত ও সায়মনকে ঢাকা পাঠানোর পর মারা গেছে, ওমর ফারকের পালস পাওয়ায় তাকে ঢাকা পাঠানো হয়েছে। বাসটি আটক করা হয়েছে। ড্রাইভার পালিয়েছে।

রাঢ়িখাল ইউনিয়নের ৩ নং ওয়ার্ড মেম্বার আবুল কালাম জানান, আমার ছেলে ওদের সাথে হাসপাতালে গেছে। ৩ জনই মারা গেছে। সাইমন ও সিফাত মাওয়া ঘাটে জ্বালানি তেলের ব্যবসা করত। ওমর ফারুক ঢাকা মোঃ পুরে ওয়েল্ডিং এর কাজ করত। গতকাল রাতে ১জন ও আজ সকালে ২ জনকে দাফন করা হয়েছে।

এশিয়াবার্তা

Comments are closed.