আসছে আড়াই হাজার টনের হ্যামার পদ্মা সেতুর জন্য

পদ্মা সেতু নির্মাণে পাইলিংয়ের জন্য প্রায় আড়াই হাজার টন ওজনের হ্যামার আগামী মাসের মাঝামাঝি দেশে এসে পৌঁছাবে বলেছেন সড়ক পরিবহন ও সেতুমন্ত্রী ওবায়দুল কাদের। বৃহস্পতিবার সচিবালয়ে এক সভায় পদ্মা সেতুর অগ্রগতি বিষয়ে সাংবাদিকদের এ তথ্য জানান তিনি।

মন্ত্রী বলেন, “পাইলিংয়ের জন্য প্রায় আড়াই হাজার টন ওজনের হ্যামার তৈরির কাজ ইতোমধ্যে জার্মানিতে শেষ হয়েছে। হ্যামারটি ১৫ মে মংলা বন্দরে এসে পৌঁছাবে।”

‘দেশব্যাপী সড়ক মেরামত-সংস্কারে গঠিত মনিটরিং টিমসমূহের কার্যক্রমের অগ্রগতি’ বিষয়ক এই সভা শেষে পদ্মা বহুমুখী সেতু নির্মাণসহ কয়েকটি প্রকল্পের অগ্রগতি সাংবাদিকদের সামনে তুলে ধরেন ওবায়দুল কাদের।

টেস্ট পাইলিংয়ের কাজ চলছে, আগামী অক্টোবরে মূল অবকাঠামোর কাজ শুরু হবে জানিয়ে মন্ত্রী বলেন, “মূল নদী শাসন কাজের ড্রেজারসহ প্রয়োজনীয় যন্ত্রপাতি চলে এসেছে। ব্লক তৈরির প্লান্ট স্থাপন করা হয়েছে। পরীক্ষামূলক ব্লক তৈরির কাজ চলছে।

“প্রকৌশলীসহ নদী শাসন কাজের টেকনিক্যাল টিম জাজিরাপ্রান্তে অবস্থান করছে এবং এপ্রোচ সড়কের জাজিরাপ্রান্তে অগ্রগতি ৪১ শতাংশ এবং মাওয়াপ্রান্তে ৪৩ শতাংশ। সার্ভিস এরিয়া-১ ও ৩ এর কাজ প্রায় শেষ, সার্ভিস এরিয়া-২ এর কাজ শেষ হয়েছে ৩২ শতাংশ।”

গত বছর পদ্মায় মূল সেতু তৈরির দায়িত্ব পায় চীনা ঠিকাদারি প্রতিষ্ঠান চায়না মেজর ব্রিজ ইঞ্জিনিয়ারিং কোম্পানি।

সেতু তৈরির এ মহাযজ্ঞ শুরুর পর প্রকল্পে চীনের প্রায় ১৫০ জন প্রকৌশলী এবং ৩৫০ জন কর্মী অংশ নিয়েছে।

সভায় আগামী বর্ষার আগে যে কোনো মূল্যে জেলা সড়কগুলো মেরামতের নির্দেশে দেন ওবায়দুল কাদের।

ঢাকা-চট্টগ্রাম মহাসড়ক চার লেনে উন্নীতকরণ প্রকল্প, বাস র‌্যাপিড ট্রানজিট (বিআরটি),জয়দেবপুর-ময়মনসিংহ মহাসড়ক চারলেনে উন্নীতকরণ প্রকল্প অগ্রগতি তুলে ধরেন মন্ত্রী।

সভায় সওজের প্রধান প্রকৌশলী মো. ফিরোজ ইকবাল, ডিটিসিএর নির্বাহী পরিচালক মো. কায়কোবাদ হোসেনসহ মন্ত্রণালয় এবং অধীনস্থ দপ্তর ও মনিটরিং টিমের প্রধানরা উপস্থিত ছিলেন।

বিডিনিউজ

Comments are closed.