মাজার জিয়ার করতে আসা গৃহবধুকে ২ দিন আটকে রেখে নির্যাতন

মঈনউদ্দিন সুমন: মুন্সীগঞ্জ সদরের গজারিয়াকান্দি গ্রামে শহর আলী পাগলার মাজারে ওরস মোবারকে যোগদান করতে আসা এক গৃহবধুু রত্নাকে (৪৪) আটক রেখে মারধর করার অভিযোগ পাওয়া গেছে।

বৃহস্পতিবার বিকেল সাড়ে ৫ টার দিকে দুই দিন পর আহতবস্থায় গ্রামবাসী নারীকে উদ্ধার করে এবং মুন্সীগঞ্জ জেনারেল হাসপাতালে ভর্তি করেছে।

আহত গৃহবধু জানান, গত মঙ্গলবার রাতে শরিয়তপুর জেলার সুরেস্বর কালিখোলা গ্রামের মজিবর সরদারের স্ত্রী (৪৪) তার দুই সন্তানকে নিয়ে মুন্সীগঞ্জের গজারিয়াকান্দি গ্রামের শহর আলীর মাজারে ওরস মোবারকে যাই।

ওইদিন রাতে কোন এক ভক্তের মোবাইল চুরি হয়। এ সময় মোবাইল চুরির অভিযোগে মাজার কর্তৃপক্ষ আমাকে ও আমার দুই সন্তানকে অভিযুক্ত করে একটি ঘরে আটকে রেখে মারধর করে। এমনকি বখাটে মিজান খানসহ ৩ বখাটে আমাকে আটক শারীরিক নির্যাতন করে।

গৃহবধু আরো জানান, গ্রামবাসী তাকে উদ্ধার করলেও এখনও তার দুই সন্তান আলআমিন ও শারমিনকে আটকে রাখা হয়েছে। তাদে দুই জনকেও উদ্ধার করার দাবী জানান গৃহবধু।

সাইদুর রহমান নামের এক গ্রামবাসী জানান, গৃহবধুকে মারধর ও নির্যাতনের খবর পেয়ে গ্রামবাসী ঘটনাস্থলে গিয়ে আহতবস্থায় গৃহবধুকে উদ্ধার করে হাসপাতালে ভর্তি করেন।

মুন্সীগঞ্জ সদর হাসপাতালের ডিউটি ডাক্তার মো: কাইয়ুম তালুকদার জানান, ঘটনার দুই দিন পর গৃহবধুকে উদ্ধার করে হাসপাতালে নিয়ে আসে এলাকবাসী।তার শরীরের বিভিন্ন স্থানে আঘাতের চিহ্ন রয়েছে। পরিক্ষা শেষে বিস্তারিত বলা যাবে।

সদর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) আবুল খায়ের ফকির জানান, খবর পেয়ে হাসপাতালে পুলিশ পাঠানো হয়েছে। ধর্ষনের বিষয়টি মেডিকেল রিপোর্ট পাওয়ার পর জানা যাবে। এ বিষয়ে ঘটনার তদন্ত শেষে আইনগত ব্যবস্থা নেওয়া হবে।

বিডিলাইভ

Comments are closed.