১৬ হাজার টাকায় ১ টি ইলিশ!

মোঃ রুবেল ইসলাম: অবিশ্বাস্য হলে এই প্রথম ১৬ হাজার টাকায় বিক্রি হয়েছে পদ্মার রূপালী ১ টি ইলিশ।২কেজি ৫০০গ্রাম ওজনের এ ইলিশটি বিক্রি হয়েছে মাওয়া পদ্মাপাড়ে সাহাবুদ্দিনের মৎস্য আড়ৎতে।

মঙ্গলবার ভোরে ইলিশ টি সুরেশ্বর নামক এলাকার পদ্মা থেকে এক জেলে ভিন্ন সাইজের এ মাছ মৎস্য আড়তে আনেন।এ সময় মাছ ’টি তিনি ডাকে বিক্রি করেন ১৫হাজার টাকায়।

মাওয়া এলাকার পাইকারী বিক্রেতা মোঃ রাজিব মৃধা নামের এক ব্যবসায়ির কাছে ।রাজিব ২কেজি ৫০০গ্রাম ওজনের ইলিশ টি ১৬ হাজার টাকা দামে , ঢাকার এক পার্টির নিকট বিক্রিকরে। তবে আসন্ন ১লা বৈশাখ এবং দুলভ বড় আকারের মাছ হওয়ায় মাছের দাম এরকম হওয়ার একটাই কারণ বলে জানা গেছে।

একইসাথে রাজধানী থেকে বিশিষ্ট ব্যবসায়ীরা মোবাইল ফোনে মাছ ব্যবসায়ীদের কাছে বড় সাইজের ইলিশের জন্য হণ্যে হয়ে খুঁজছেন ।ফলে চাহিদা ও শখের কারণে দামও বেড়ে যাচ্ছে কয়েকগুণ ।

আর মাত্র ক”দিন বাকি ১লা বৈশাখের পান্তা ইলিশের আয়োজনকে কেন্দ্র করেই ইলিশ কেনার আশায় দূর -দুরান্ত থেকে অনেকেই ছুটছেন বহুআলোচিত পদ্মাসেতু এলাকার মাওয়ার পদ্মাপাড়ে।

এসব কিছুকে কেন্দ্র করেই পদ্মার রূপালী ইলিশের বাজারে এখন আগুনের উত্তাপ।সোনার দামে ইলিশ।যাও পাওয়া যাচ্ছে তাও দাম হাঁকা হচ্ছে আকাশচুম্বী।

দুস্কর তরতাজা একটি পদ্মার ইলিশ এখন বিক্রি হচ্ছে ৪হাজার থেকে ইসাড়ে ১৬ হাজার টাকায়ও।রাজধানীর বিভিন্ন পাইকার ,স্থানীয় খুচরা বিক্রেতাদের পাশাপাশি বিত্তবান অনেক ক্রেতা খুব ভোরে মাওয়ায় এসে এসব ইলিশ কিনে নিয়ে যাচ্ছেন বেশী দাম দিয়ে।

তবে কৃত্রিম সংকট সৃষ্টি করে এ হারে দাম বাড়তে পারে বলে অনেকে মনে করছেন।অন্যদিকে ১লা বৈশাখের চাহিদা মেটাতে বহু সরকারি -বেসরকারি কর্মকর্তারাও হন্যে হয়ে পাড়ি দিচ্ছেন মাওয়ার এই মৎস্য আড়তে।

আঃরহমান মৎস্য আড়তের (সরকার) মোঃ আক্কাস শেখ জানান , মঙ্গলবার সকালে চাঁদপুর সংলগ্ন নদীর পদ্মার নামা থেকে দেড় কেজির সমান বেশী ওজনের একটি ইলিশ তাদের আড়তে আসে।

পরে মাছটি সাড়ে ১০হাজার টাকায় রাজধানীর এক পাইকার .কিনে নিয়ে যান। এছাড়া গতকাল সোমবার সোয়া কেজি ওজনের দুটি মাছ ১১হাজার টাকায় করে বিক্রি করা হয়েছে ।

ও এক কেজির কম পরিমাপের বিভিন্ন সাইজের এক হালি ইলিশ প্রকারভেদে ৪হাজার থেকে ৭/৮হাজার টাকায় বিক্রি হচ্ছে।তবে এক কেজির বেশী পরিমাপের বড় সাইজের ইলিশ এখন পাওয়াই যাচ্ছে না বলে তিনি জানান ।

আঃমজিদ মৎস্য আড়তের আড়তদার মোঃ মজিদ শেখ জানায়,গত কয়েকদিন থেকে এখানে পদ্মার বড় ইলিশের খুবই সঙ্কট রয়েছে।এক কেজি ওজনের ইলিশও পাওয়া যাচ্ছে না।

মাত্র দু’দিন আগেও ইলিশের পাইকাররা ১কেজির সামান্য কম ওজনের ৪টি ইলিশ ৬ হাজার টাকা দিয়ে বিক্রি করা হলেও গত সোমবার থেকে এসব ওজনের এক হালি ইলিশ বিক্রি হচ্ছে ৮/৯হাজার টাকায়।

এক কেজির বেশী হঠাৎ যাও পাওয়া যাচ্ছে তা বিক্রি হচ্ছে ১৪/১৫হাজার টাকায়। তিনি আরো জানান ,সোমবার ভোরে শরীয়তপুরের সুরেশ্বর এলাকার নামার পদ্মা থেকে এক জেলেরা বড় ভিন্ন ভিন্ন সাইজের কয়েক ’টি ইলিশ মাছ তার আড়তে আনে।এ সময় মাছ গুলোতিনি ডাকে বিক্রি করেন ১৩/১৪হাজার টাকায়।

ঢাকার এক পাইকার দুই কেজি ওজনের একটি ইলিশ মাছ ও এক কেজি পরিমাপের কম ওজনের ৪টি ইলিশ মাছ ৩৬ হাজার টাকায় কিনে নিয়ে যান।

সময়ের কন্ঠস্বর

Comments are closed.