গৃহকর্তার গলা কেটে পালালো কাজের ছেলে!

রাজধানীর গেন্ডারিয়ায় সানি সরকার (৪৫) নামে এক ব্যক্তিকে গলা কেটে হত্যা করার অভিযোগ উঠেছে বাসার কাজের ছেলের বিরুদ্ধে। কথা কাটাকাটির জের ধরে এ হত্যাকাণ্ড ঘটেছে বলে ধারণা বাসার লোকজনের। তাদের ধারণা গৃহকর্তা সানি সরকারের গলায় ছুরিকাঘাত করে পালিয়েছে গৃহপরিচারক জুম্মন (২২)। খুনের পর তাকে তড়িঘড়ি করে জুম্মনকে পালাতেও দেখেছে প্রতিবেশীরা। রবিবার দুপুরে গেন্ডারিয়ার মিল ব্যারাক এলাকায় এ হত্যাকাণ্ড ঘটে।

গেন্ডারিয়া থানার এসআই শাহজাহান আলী বাংলা ট্রিবিউনকে জানান, নিহত সানি সরকার গেন্ডারিয়ার মিলব্যারাক এলাকার আলমগঞ্জের ১৪/১ নম্বর বাড়ির মালিক। দোতলা বাড়ির নিচতলায় থাকেন ভাড়াটিয়ারা। দোতলায় সানি সরকার পরিবার নিয়ে থাকতেন। বাড়ি-ঘর দেখাশোনা ছাড়া অন্য কোনও কাজ করতেন না তিনি।

এসআই শাহজাহান আরও জানান, খবর পেয়ে বাড়ি ও হাসপাতালে যান তারা। সেখানে গিয়ে স্বজনদের কাছ থেকে জানতে পারেন, জুম্মন নামের এক যুবক ওই বাড়িতে কাজ করতো। দুপুরে সানি সরকার খুন হওয়ার পর তাকে দ্রুত পালাতে দেখেছেন তারা। ছুরিকাঘাতে সানির শ্বাসনালী কেটে যায়। দ্রুত ঢাকা মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে নিয়ে যাওয়ার পর চিকিৎসকরা জানান, হাসপাতালে নেওয়ার আগেই সানি সরকার মারা গেছেন।

নিহতের ছোট বোন ইয়াসমিন হাসপাতালে সাংবাদিকদের জানান, তিনি ধানমণ্ডিতে থাকেন। তিন দিন আগে বাপের বাড়ি বেড়াতে আসেন। রবিবার দুপুরে তার ভাই সানি সরকার বাসার ছাদে যান কুবুতরকে খাবার দিতে। কিছুক্ষণ পর ভাইকে চিৎকার দিয়ে সিঁড়িতে লুটিয়ে পড়তে দেখেন। কে বা কারা তাকে গলায় ও শরীরের বিভিন্নস্থানে ছুরিকাঘাত করে পালিয়ে যায়। তবে একই সময়ে বাসার কাজের ছেলে জুম্মনকে দোতলা থেকে লাফিয়ে পালিয়ে যেতে প্রতিবেশীরা দেখেছেন বলে জানিয়েছে। তারও ধারণা, এ হত্যাকাণ্ডে জুম্মন জড়িত। কবুতরকে খাবার দেওয়া নিয়ে জুম্মনের সঙ্গে সানির কথাকাটাকাটি হতে পারে। এছাড়া অন্য কোনও কারণ আছে কি না তিনি জানেন না।

গেন্ডারিয়া থানার ওসি সৈয়দ শহীদ আলম বাংলা ট্রিবিউনকে জানান, ঘটনাস্থল ও হাসপাতালে পুলিশ পাঠানো হয়েছে। তদন্তের পর বোঝা যাবে কে কী কারণে সানি সরকারকে হত্যা করেছে। পলাতক জুম্মনকেও গ্রেফতারের চেষ্টা চলছে বলে জানান তিনি।

এ ঘটনায় মামলা দায়েরের প্রস্তুতি চলছে বলে জানান ওসি শহীদ আলম। নিহত সানি সরকারদের গ্রামের বাড়ি মুন্সীগঞ্জ সদরের নোয়াগাঁওয়ে। স্ত্রী কনা আক্তার, ছেলে আলী আজগর (৬) ও মেয়ে আশফীকে (১) নিয়ে থাকতেন গেন্ডারিয়ায়।

বাংলা ট্রিবিউন

Comments are closed.