প্রাণনাশের আশঙ্কায় এক জা’র অন্যত্র আশ্রয় : দুই জায়ের দ্বন্দ্ব

মোজাম্মেল হোসেন সজল: মুন্সীগঞ্জের লৌহজংয়ে পাওনা টাকা নিয়ে দুই জায়ের দ্বন্দ্ব এখন প্রকট আকার ধারণ করেছে। তাদের এ দ্বন্দ্ব থানা পুলিশ পর্যন্ত ঘরিয়েছে। এক জা আরেক জায়ের বিরুদ্ধে থানায় প্রাণনাশের হুমকি ও সন্ত্রাসী বাহিনী লেলিয়ে দেওয়ার অভিযোগে থানায় সাধারণ ডায়েরি করেছেন। কিন্তু এরপরও নিরাপত্তার অভাবে এক জা এখন শ্বশুর বাড়ি ছেড়ে বাবার বাড়িতে আশ্রয় নিয়েছেন। তবে, জাদের আপন দুই ভাই বিদেশে অবস্থান করছেন। দুই জায়ের এ দ্বন্দ্বে অসহায় হয়ে পড়েছেন বৃদ্ধ শ্বশুর সাদেক শেখ (৭০) শ্বাশুড়ি ফাতেমা আক্তার (৬০)।

জানা গেছে, লৌহজং উপজেলার গাওদিয়া ইউনিয়নের দুলুগাঁও গ্রামের সাদেক শেখের ৬ ছেলের মধ্যে ৪ ছেলে প্রবাসী। এরমধ্যে আমানুল শেখ সৌদি আরব ও দীন ইসলাম শেখ হংকংয়ে থাকেন। তাদের সন্তানদের স্ত্রীরা সবাই তার বাড়িতেই থাকেন।

সাধারণ ডায়েরি সূত্র মতে, গত ৩ বছর আগে দীন ইসলাম দেশে আসলে জমি কেনার জন্য অপর ভাই আমানুল শেখের স্ত্রী তাসলিমা বেগম ২ লাখ ২০ হাজার টাকা ঋণ নেয় ৬ মাসের কথা বলে। কিন্তু ওই টাকা দীর্ঘদিনেও পরিশোধ না করলে দুই ভাইয়ের দুই স্ত্রী তাসলিমা বেগম ও জুলেখা আক্তারের মধ্যে বিরোধ চরম আকার ধারণ করে। এনিয়ে তাসলিমা কতিপয় জাকারিয়া, মামুনসহ অজ্ঞাতনামা ২-৩ জন নিয়ে জুলেখা আক্তার ও তার শিশু কন্যা জান্নাতুল ফেরদৌস (৩)-কে মারধরসহ প্রাণনাশের হুমকি দিয়ে টাকা না দেবার কথা হুমকি প্রদর্শন করছে। এ ঘটনায় জুলেখা আক্তার গত ২১ শে মার্চ লৌহজং থানায় উল্লেখিতদের নামে জীবনের নিরাপত্তা চেয়ে সাধারণ ডায়েরি করেছেন (যার নম্বর ৬২৬)।

এদিকে, প্রাণনাশের ভয়ে জুলেখা তার একমাত্র কন্যাকে নিয়ে শ্বশুরালয় ছেড়ে বাবার বাড়ি শহরের উত্তর ইসলামপুরে আশ্রয় নিয়েছেন।

এ ব্যাপারে লৌহজং থানার এসআই রবিউল ইসলাম জানান, ঘটনা তদন্তে এলাকায় গিয়েছিলাম। বিষয়টি বিবদমান দুই জায়ের শ্বশুর ও এলাকার মাতবরদের সমাধান করতে বলা হয়েছে। তারা ব্যর্থ হলে আইনানুগ ব্যবস্থা নেয়া হবে।

মুন্সীগঞ্জ বার্তা

Comments are closed.