আন্দোলনের চাপেই তড়িঘড়ি করে সিটি নির্বাচন : খোকা

২০ দলীয় জোটের আন্দোলনের চাপেই সরকার তড়িঘড়ি করে সিটি করপোরেশন নির্বাচন ঘোষণা করেছে বলে দাবি করেছেন যুক্তরাষ্ট্রে অবস্থানরত বিএনপির ভাইস চেয়ারম্যান সাদেক হোসেন খোকা।

তিনি অভিযোগ করে বলেন, ৫ জানুয়ারির নির্বাচনের মধ্য দিয়ে বর্তমান অবৈধ সরকার দেশের গণতন্ত্র গলাটিপে হত্যা করেছে। পুলিশ ও র‌্যাব দিয়ে প্রতিনিয়ত নির্যাতন, গুম ও খুন করে যাচ্ছে। বিএনপির কেন্দ্রীয় মুখপাত্র সালাহ উদ্দিন আহমেদকে সন্দেহাতীতভাবে সরকারই নিরুদ্দেশ করেছে।

বিএনপির যুগ্ম-মহাসচিব সালাহ উদ্দিন আহমেদকে তার পরিবারের কাছে ফিরিয়ে দেওয়াসহ দেশের চলমান রাজনৈতিক প্রেক্ষাপট তুলে ধরতে সংবাদ সম্মেলনের আয়োজন করে যুক্তরাষ্ট্র বিএনপি। ২৩ মার্চ সোমবার জ্যাকসন হাইটসের জুইস সেন্টারে স্থানীয় সময় সন্ধ্যা ৭টায় আয়োজিত এ সম্মেলনে লিখিত বক্তব্য দেন সাদেক হোসেন খোকা।

খোকা জানান, দুরারোগ্য ব্যাধিতে আক্রান্ত হওয়ার কারণেই যুক্তরাষ্ট্রে অবস্থান করছেন তিনি। দলীয় চেয়ারপারসন খালেদা জিয়া, লন্ডনে অবস্থানরত দলের সিনিয়র ভাইস চেয়ারম্যানসহ নীতিনির্ধারণী ফোরামের সব নেতার সঙ্গেই তার যোগাযোগ রয়েছে বলেও জানান খোকা।

সাদেক হোসেন খোকা তার বক্তব্যে বলেন, বর্তমান সরকার গণতন্ত্রবিরোধী। হত্যা থেকে শুরু করে হেন কোনো অপকর্ম নেই যা তারা করেনি।

সংবাদিকদের এক প্রশ্নের জবাবে খোকা বলেন, বাংলাদেশ ব্রিটিশ ও পাকিস্তান আমলের স্বৈরশাসকরাও অবৈধভাবে শাসন করেছে। প্রচুর ক্ষমতাবান মনে করেও তাদের শেষরক্ষা হয়নি। স্বাধীন বাংলাদেশের জনগণও কোনো অবৈধ স্বৈরশাসককে বেশী দিন ক্ষমতায় রাখবে না। আজ যদি র‌্যাব পুলিশের সাপোর্ট না নিয়ে সরকার মাঠে নামে ৩০ মিনিট তো বেশী বলেছি, দূরবীন দিয়েও তাদের খুঁজে পাওয়া যাবে না।

সিটি করপোরেশন নির্বাচন প্রসঙ্গে তিনি জানান, আমরা অতীতে সিটি করপোরেশন নির্বাচনসহ উপজেলা নির্বাচনে অংশ নিয়েছি। বর্তমানে সরকার সিটি করপোরেশন নির্বাচন ঘোষণা করেছে বিএনপি জোটের আন্দোলনকে ভিন্ন দিকে প্রবাহিত করতে। এ নির্বাচনে বিএনপি অংশ নেবে কিনা তা চেয়ারপারসনসহ নীতিনির্ধারনী ফোরাম পর্যালোচনা করছে। সিটি করপোরেশন নির্বাচনে অংশ নিলেও আন্দোলন অব্যাহত থাকবে।

খোকা অভিযোগ করে বলেন, দলীয় চেয়ারপারসন ছাড়া কেন্দ্রীয় নেতাদের বেশীরভাগই অবৈধ সরকারের কারাগারে অন্তরীণ। এ সব করে সরকার পুরো দেশকে অস্থিতিশীল রাষ্ট্রে পরিণত করে ফেলেছে। নিজেরাই পেট্রোলবোমা মেরে বিএনপির ঘাড়ে দোষ চাপাচ্ছে। বিএনপি নিজেদের স্বার্থে আন্দোলন করছে না। জনগণের স্বার্থরক্ষায় এই আন্দোলন। জনগণ এখন আর বোকা না। তাই জোর করে ক্ষমতায় বেশী দিন টিকতে পারবে না এই সরকার। তাদের সময় ফুরিয়ে এসেছে।

তিনি বলেন, সরকার সালাহ উদ্দিন আহমেদের পরিবারের মতো একই আচরণ করেছে ইলিয়াস আলীর পরিবারের সঙ্গে। খোদ প্রধানমন্ত্রীসহ মন্ত্রী-এমপিরা প্রকাশ্যে গুম-খুনের পক্ষে যে ভাষায় কথা বলছেন তা অমানবিক।

খোকা বলেন, সরকার তাদের নির্লজ্জ খায়েস পূরণে পুরো দেশে যেভাবে মানুষ খুন করছে সেটা নজিরবিহীন। রাষ্ট্রের নিরাপত্তা বাহিনীকে ব্যবহার করছে তারা। যারা এ সব অপকর্মের সঙ্গে সম্পৃক্ত তাদের প্রত্যেককেই একদিন বিচারের মুখোমুখি করা হবে বলেও হুঁশিয়ারি দেন তিনি।

সংবাদ সম্মেলনে উপস্থিত ছিলেন- যুক্তরাষ্ট্র বিএনপির সাবেক সভাপতি আবদুল লতিফ সম্রাট, ভারপ্রাপ্ত সভাপতি শরাফত হোসেন বাবু, সহ-সভাপতি গিয়াস আহমেদ, সাধারণ সম্পাদক জিল্লুর রহমান জিল্লু, কোষাধ্যক্ষ জসিম উদ্দিন ভূঁইয়া, বিএনপি নেতা আবদুল খালেক আকন্দসহ বিএনপি ও এর সহযোগী সংগঠনের নেতাকর্মীরা।

দ্য রিপোর্ট

Comments are closed.