গনাইসার গ্রাম পুরুষ শূণ্য : ১২ মামলায় আসামী প্রায় শতাধিক

টঙ্গীবাড়ী উপজেলার গণাইসার গ্রামে ২ গোত্রের মধ্যে চলমান সংর্ঘষে গত ২ মাসে টঙ্গীবাড়ী থানা এবং মুন্সীগঞ্জ আদালতে ১২টি মামলা হয়েছে। এতে প্রায় ১ শত জনকে আসামী করা হয়েছে। গত ১ সপ্তাহে টঙ্গীবাড়ী থানায় ৪টি মামলা দায়ের করা হয়েছে। এতে পুরুষ শূণ্য হয়ে পড়েছে গনাইসার গ্রাম। সর্বশেষ গত মঙ্গলবার দফায় দফায় সংর্ঘষ ভাংচুর হামলা পাল্টা হামলা ও অগ্নিসংযোগ এর ঘটনা ঘটেছে। এ ঘটনায় পুলিশ ৩ জনকে গ্রেফতার করে জেল হাজতে প্রেরণ করেছে।

জানাগেছে, গত ফুটবল বিশ্বকাপ খেলা চলার সময় গনাইসার রাস্তায় পতাকা দিয়ে গেইট নির্মাণকে কেন্দ্র করে আর্জেনটিনা ও বার্জিল সমর্থক গোষ্ঠির মধ্যে সংঘর্ষ হয়। সে সময় ২ জন টেটাবিদ্ধসহ প্রায় ২০ জন আহত হয়। এর পর হতে উক্ত সংঘর্ষ গোষ্ঠিগত দ্বন্দ্বে রুপ নেয়। ৩০ বছরের ও অধিক সময় ধরে চলে আসা গণাইসার গ্রামের পাইক ও চোকদার গোত্র দু-ভাগে বিভক্ত হয়ে পড়ে। সম্প্রতি এই গোষ্ঠিগত দন্ড চরম রুপ লাভ করছে।

চোকদার গ্রুপের পক্ষে গনাইসার গ্রামের সামছুল চোকদার এর ছেলে মিলন চোকদার, পাইক গোত্রের পক্ষে নারী নেত্রী আয়েশা নেতৃত্ব দিচেছন বলে একাধিক সুত্রে নিশ্চিত হওয়া গেছে। বার্জিল ও আর্জেনটিনা সমর্থক গোষ্ঠির দ্বন্দ্বের পাশাপাশি মিলন এবং আয়েশার পারিবারিক দ্বন্দ্বের জের ধরে এ সমস্ত হামলা মামলায় জড়িয়ে পরেছে দুটি গোত্র। এ সমস্ত সংঘর্ষ ও চলমান পরিস্থিতি নিয়ে টঙ্গীবাড়ী উপজেলা পরিষদে একাধিকবার বিচার শালিশী অনুষ্ঠিত হলেও চলমান সংকট নিরশন করা সম্ভব হয়নি। ত্চ্ছু ঘটনাকে কেন্দ্র করে চলে আসা গোষ্ঠিগত দ্বন্দ্ব চরম রুপ লাভ করেছে।

গত রোববার ভারাটিয়া সন্ত্রাসী এনে দুটি গ্রুপ সংঘর্ষে লিপ্ত হয়। সে সময় গণধোলাই দিয়ে ২ ভারাটিয়া সন্ত্রাসীকে পুলিশে সোপাদ্দ করে স্থাণীয় জনতা। দুই গোত্রের লোকজনের পাশাপাশি তাদের আতœীয় স্বজনরাও জড়িয়ে পরেছে এই গোষ্ঠিগত দ্বন্দ্বে। যে কোন সময় আবারও ভারাটিয়া সন্ত্রাসী এনে রক্তক্ষয়ী সংঘর্ষে লিপ্ত হওয়ার আশঙ্কা করছে অনেকেই।

মুন্সীগঞ্জের প্রধান শষ্য আলু উঠানের এই মৌসুমে সংর্ঘষ চরম আকার ধারণ করায় আলু উত্তেলন কাজ ব্যাহত হচ্ছে। পরিবারের পুরুস সদস্যরা আতœগোপনে থাকায় উঠতি ফসল সময়মতো উত্তেলন করতে না পারায় অনেক আলু নষ্ট হয়ে যাওয়ার উপক্রম হয়েছে।

এ ব্যাপারে টঙ্গীবাড়ী থানার ওসি আ. মালেক জানান, যখনি কোন ঘটনা ঘটেছে ঘটনার আলোকে আমরা থানায় মামলা নিয়েছি। আইনশৃঙখলা পরিস্থিতি স্বাভাবিক রাখার জন্য মাঝে মঝে পুলিশও মোতায়েন রাখতে হয়েছে। বিষয়টি আমি আমার উপর মহলে অবগত করেছি। উপর মহলসহ শীঘ্রই ২ পক্ষকে নিয়ে একটি মিটিং করার প্রস্তুতি নিচ্ছি।

বিক্রমপুর চিত্র

Comments are closed.