গনাইসারে ডাকাত সন্দেহে প্রতিবন্ধিকে গনপিটুনি

মটরসাইকেলে আগুন দিয়ে দু’জনকে পুলিশে সোপর্দ
সুমিত সরকার সুমন: মুন্সীগঞ্জের টঙ্গীবাড়ী উপজেলার গনাইসারে শনিবার গভীর রাতে প্রতিপক্ষের দু’জনকে বেদম প্রহারের পর পুলিশে সোপর্দ করেছে। পরে তাদের ব্যবহৃত দু’টি মোটরবাইকে আগুন ও ভাংচুর করেছে। আহত অবস্থায় গ্রেফতারকৃত বাবু (২৯) ও ইসমাইলকে (২৭) রবিবার বিকালে মুন্সীগঞ্জ আদালতে পাঠানো হয়। গ্রামটির চোকদার ও পাইক গোত্রের মধ্যে অধিপাত্য নিয়ে বিরোধ চলছে বেশ কিছুদিন ধরে।

অভিযোগ রয়েছে-শনিবার রাত ৯ টায় গণাইসার গ্রামের পূর্ব পাশের পাইক গ্রুপের স্বপন ঢালীর জমির আলু জোর করে তুলে নেওয়ার চেষ্টা করে চোকদার বংশের লোকজন। এনিয়ে দু’গ্রুপের ফের সংঘর্ষে জড়িয়ে পড়ে। পরে আহত শহিদ চোকদারের ছেলে প্রতিবন্ধি দিপক সহ রাত ২ টার দিকে চোকদার গ্রুপের পক্ষে দুটি মোটরবাইক যোগে ঢাকা থেকে ছয় জন এলাকায় আসে।

আগে থেকেই ওত পেতে থাকা পাইক গ্রুপের লোকজন তাদের পথরোধ করে মারপিট করে। পরে “ডাকাত” “ডাকাত” বলে চিৎকার করলে গ্রামের লোকজন এসে গণধোলাই শুরু করে। এই সময় চারজন পালিয়ে রক্ষা পায়। তবে নারায়নগঞ্জের রূপগঞ্জ উপজেলার ছনপাড়া গ্রামের নুরুল ইসলামের পুত্র বাবু (২৯) এবং ঢাকার আদাববরের বায়তুল আমান ৪নং রোডের ৬১৯নং বাসার আ. করিম হাওলাদারের পুত্র ইসমাইলকে (২৭) মারধরের পর সন্ত্রাসী দাবী করে পুলিশে সোপর্দ করে পাইক গ্রুপ। তবে গ্রেফতারকৃতরা দাবী করেছে-তারা নির্দোষ আত্মীয়ের বাড়িতে বেড়াতে এসেছিলেন।

টঙ্গীবাড়ী থানার অসি তদন্ত মেহেদি হাসান জানান, পাইক গ্রুপের পক্ষে আয়েশা বেগম বাদী হয়ে টঙ্গীবাড়ী থানায় দুপুর ২টায় ৭ জনকে আসামী করে একটি মামলা দায়ের করেছে। অন্যদিকে চোকদার গ্রুপের পক্ষে শহিদ চোকদার বাদী হয়ে মামলার প্রক্রিয়া চলছে।

বিডিলাইভ

Comments are closed.