শীর্ষ সন্ত্রাসী ‘চান্দা জনি’ আটক

শেখ মো. রতন: চাঁদাবাজ, মাদক ও অস্ত্র ব্যাবসায়ী জালাল উদ্দিন জনি (২৬) ওরফে ‘চান্দা জনি’-কে আটক করেছে মুন্সীগঞ্জ সদর উপজেলার রামপাল ইউনিয়নে সদর থানার আওতাধীন হাতিমারা ফাঁড়ি-পুলিশের একটি চৌকস দল।

শুক্রবার সন্ধা সাড়ে ৬টার দিকে সিপাহী পাড়া এলাকা থেকে তাকে আটক করে পুলিশ। জনপ্রিয় অনলাইন নিউজ পোর্টাল রাইজিংবিডিতে সংবাদ প্রকাশের ১৪ ঘণ্টার মধ্যে আটক হন তিনি। শুক্রবার ভোর রাতের দিকে ‘মুন্সীগঞ্জে আতঙ্কের নাম ‘চান্দা জনি’ শিরোনামে সংবাদটি প্রকাশিত হয়।

হাতিমারা ফাঁড়ি-পুলিশের ইনচার্জ মো. সেলিম মিয়া জানান, রাইজিংবিডি ডট কম-এ প্রকাশিত ‘মুন্সীগঞ্জে আতঙ্কের নাম চান্দা জনি’ শিরোনামের প্রকাশিত সংবাদটি পড়ে বিষয়টি মুন্সীগঞ্জ জেলা পুলিশ সুপার বিপ্লব বিজয় তালুকদার, জেলা সদর সার্কেল-(এএসপি) এমদাদ হোসেন ও সদর থানার অফিসার ইনচার্জ-(ওসি) আবুল খায়ের ফকিরের দৃষ্টি গোচর হয়। এর পরে জেলা পুলিশ-সুপার সদর থানার ওসিকে জালাল উদ্দিন জনি (২৬) ওরফে চান্দা জনিকে আটক করার নির্দেশ দেন।

পুলিশ-সুপারের নির্দেশ অনুযায়ী ওসি আবুল খায়ের ফকির সদরের রামপাল ইউনিয়নে সদর থানার আওতাধীন হাতিমারা পুলিশ ফাঁড়ির ইনচার্জ মো. সেলিম মিয়াকে ২৪ ঘণ্টার মধ্যে চাঁদাবাজ, সন্ত্রাসী, মাদক ও অস্ত্র ব্যাবসায়ী জালাল উদ্দিন জনি (২৬) ওরফে ‘চান্দা জনি’কে গ্রেফতারের নির্দেশ দেন।

এ প্রসঙ্গে সদর থানার অফিসার ইনচার্জ-(ওসি) আবুল খায়ের ফকির রাইজিংবিডিকে জানান, সদরের সিপাহীপাড়া এলাকার ব্যাবসায়ী কাজী আশাদুজ্জামান লিপু তার নিজের জমিতে শপিং কমপ্লেক্স নির্মাণ করছেন। বৃহস্পতিবার চান্দা জনি লিপুর কাছে তিন লক্ষ টাকা চাঁদা চান। ওই ব্যবসায়ীকে পিস্তল ঠেকিয়ে প্রাণ নাশের হুমকিও দেন। এরপর বৃহস্পতিবার রাত ১১টার দিকে জনির বিরুদ্ধে সদর থানায় একটি লিখিত অভিযোগ করেন লিপু।

লিপুর লিখিত অভিযোগের প্রেক্ষিতে রাইজিংবিডিতে ‘মুন্সীগঞ্জে আতঙ্কের নাম ‘চান্দা জনি’ শিরোনামে প্রকাশিত সংবাদটি পড়ার পর পুলিশ-প্রশাসনের ঊর্দ্ধতন কর্তৃপক্ষ তাকে আটকের নির্দেশ দেন। পরে জেলা পুলিশ সুপার বিপ্লব বিজয় তালুকদারের নির্দেশে ও সদর থানার ওসি আবুল খায়ের ফকিরের প্রচেষ্টায় সিপাহী পাড়া এলাকা থেকে জনিকে আটক করে পুলিশ।

রাইজিংবিডি

Comments are closed.