নেশাগ্রস্থ স্বামীর আগুন : টঙ্গীবাড়ীতে গুচ্ছ গ্রামের ৫ ঘর পুড়ে ছাই

ডিএম বেলায়েত শাহিন: টঙ্গীবাড়ী উপজেলার বানারী গুচ্ছ গ্রামে নেশাগ্রস্থ স্বামীর নেশার টাকা না দেওয়ায় স্ত্রীকে পুড়ে মারার চেষ্টা করার সময় আগুনে ৫টি ঘর পুড়ে ছাই হয়ে গেছে। ক্ষতিগ্রস্থ পরিবারগুলো খোলা আকাশের নিচে বসবাস করছে। এ ঘটনায় সালমা বেগম বাদী হয়ে সোমবার টঙ্গীবাড়ী থানায় একটি অভিযোগ দায়ের করছে।

জানাগেছে, গত ৩ বছর পূর্বে ভূমিহীনদের জন্য বানারী গ্রামে ২৬৬টি ঘর নির্মান করে দেয় সরকার। এই আশ্রায়ন পকল্পে সেই সময় ভূমিহীন সুরুজ শনি একটি ঘর বরাদ্ধ পায়। এরপর হতে ৫ সন্তানের জনক সুরুজ ও তার স্ত্রী সালমা বেগম পরিবার নিয়ে উক্ত ঘরেই বসবাস করে আসছিলো।

এলাকাবাসী জানায়, মাদকাশক্ত সুরুজ প্রায় তার গর্ভবতী স্ত্রী সালমা বেগমকে নেশার টাকার জন্য মারধর করতো। গত শনিবার বিকেল ৪ টার দিকে নেশার টাকা না পেয়ে স্ত্রী সালমাকে ঘরের মধ্যে আটক করে গায়ে কেরোসিন ছিটিয়ে আগুন জ্বালিয়ে দেয় সুরুজ। স্ত্রী সালমা ঘরের দরজা ভেঙ্গে দৌড়ে পালিয়ে গেলেও তার পড়নের শাড়ী ও এক পা পুড়ে গেছে।

এ সময় আগুনের শিখা দ্রুত ছড়িয়ে পরে পাশের মো. আলী, পিয়ার হোসেন, ফেদু হাওলাদার, মিলন হাওলাদারের ঘরে ছড়িয়ে পরে তাদের ঘর এবং আসবাবপত্র পুড়ে ছাই হয়ে যায়। স্থানীয়দের সহায়তায় পরে আগুন নিয়ন্ত্রনে আনে। এতে প্রায় ৭ লক্ষ টাকার ক্ষয় ক্ষতি হয় বলে স্থাণীয় সুত্রে জানাগেছে। এ ব্যাপারে টঙ্গীবাড়ী থানার ওসি আ. মালেক জানান, বিষয়টি তদন্ত চলছে তদন্ত শেষে আইনগত ব্যাবস্থা নেওয়া হবে।

বিক্রমপুর চিত্র

Comments are closed.