নির্বাচনের ইস্যুতে নয়, সংলাপ হতে পারে জনগন ও রাষ্ট্রের নিরাপত্তা নিয়ে

যুদ্ধাপরাধী বিচার ও মুক্তিযুদ্ধ প্রসঙ্গে একাত্তরের ঘাতক দালাল নির্মূল কমিটির ভারপ্রাপ্ত সভাপতি লেখক সাংবাদিক শাহরিয়ার কবির বলেছেন- নির্বাচনের ইস্যুতে নয়, খালেদা জিয়ার সঙ্গে সংলাপ হতে পারে জনগন ও রাষ্ট্রের নিরাপত্তা নিয়ে। সাবেক প্রধানমন্ত্রী খালেদা জিয়া এখন সন্ত্রাসবাদের হাতের পুতুল। খালেদা জিয়ার রাজনৈতিক প্রতিহিংসায় আজ আগুনে পুড়ছে দেশ। খালেদা জিয়া অবরোধ-হরতাল ডেকে ককটেল. পেট্রোল বোমা ও আগুনে পুড়িয়ে ৩৫ জনকে হত্যা করেছে।

সহিসংতার কারনে বেগম খালেদা জিয়াকে মামলায় হুকুমের আসামী করা হবে। ক্ষমতার গদি নয়, নিজে ও ছেলেকে মামলা থেকে বাঁচতে এ অবরোধ হরতাল ও সহিংসতা ঘটাচ্ছেন খালেদা জিয়া।

শনিবার সন্ধ্যা সাড়ে ৫ টার দিকে মুন্সীগঞ্জ শহরের পুরাতন কাচারী এলাকায় শহীদ মিনার প্রাঙ্গনে একাত্তরের ঘাতক দালাল নির্মূল কমিটির ২৩ তম প্রতিষ্ঠার আলোচনা সভায় প্রধান অতিথির বক্তৃতায় তিনি এ সব কথা বলেন।

জেলা ঘাতক দালাল নির্মূল কমিটির সভাপতি জামাল হোসেনের সভাপতিত্বে সভায় অন্যান্যের মধ্যে বক্তৃতা করেন- যুদ্ধাপরাধ আর্ন্তজাতিক ট্রাইব্যুনালের রাষ্ট্রপক্ষের নিযুক্ত আইনজীবী ব্যারিষ্টার ড. তুরিন আফরোজ, একাত্তরের ঘাতক দালাল নির্মূল কমিটির কেন্দ্রীয় সাধারন সম্পাদক কাজী মুকুল, সরকারি হরগঙ্গা কলেজের সাবেক অধ্যক্ষ সুখেন চন্দ্র ব্যানার্জী, জেলা মুক্তিযোদ্ধা কমান্ডার আনিছুজ্জামান আনিছ, জেলা আ’লীগের সহ-সভাপতি তোফাজ্জল হোসেন, নারায়নগঞ্জ জেলা ঘাতক দালাল নির্মূল কমিটির সভাপতি চন্দন শীল, মুন্সীগঞ্জ জেলা সম্মিলিত সাংস্কৃতিক জোটের সভাপতি মুক্তিযোদ্ধা মতিউল ইসলাম হিরু, অ্যাডভোকেট আব্দুল মতিন, মুক্তিযোদ্ধা এম এ কাদের মোল্লা, দেলোয়ার হোসেন প্রমুখ।

বিডিলাইভ

Comments are closed.