এবার শ্রীপল্লী পুকুর ভরাটের চেষ্টা!

মুন্সীগঞ্জ শহরের ঐতিহ্যবাহী শ্রীপল্লী পুকুর ভরাটের চেষ্টা চলছে এবার। দুই শ’ বছরেরও বেশী প্রাচীর এই পুকুর ভরাট হয়েগেলে এখানকার জীববৈচিত্রে মারত্মক প্রভাব পরেবে বলে আশঙ্কা করছে পরিবেশবীদরা। শ্রীপল্লী বাসিন্দা অধ্যাপক প্রবীর কুমার গাঙ্গুলি জানান, এই পুকুর হচ্ছে শ্রীপল্লী প্রাণ। এখানে গোসলছাড়াও নানা জলজ ক্রীড়া হয়। পুকুরের টলটল পানি দেখতেও ভালো লাগে। এছাড়া আশপাশের পরিবারগুলো গোলাকৃতির বিশাল এই পুকুরের চারিপাশে গৃহস্থালিতর কাজ করে।

কিন্তু হঠাৎ করে গত কয়েক দিন ধরে বাঁশের বাধ দিয়ে বালু ফেলে ভরাটের চেষ্টা করা হচ্ছে। এমন পুরো শ্রীপল্লীবাসীই ক্ষুব্দ এখন পুকুর ভরাট নিয়ে। বাংলাদেশ পরিবেশ আন্দোলন বাপার মুন্সীগঞ্জের সভাপতি ও সাবেক মেয়র অ্যাডভোকেট মুজিবুর রহমান জানান, এই পুকুর ভরাট হবে আত্মঘাতি সিদ্ধান্ত। পরিবেশ তথা জীব বৈচিত্রের স্বার্থে এই পুকুর ভরাট রোধ করা জরুরি।

মুন্সীগঞ্জ পরিবেশ অধিদপ্তরের সহকারী পরিচালক নুরে আলম জানান, পুকুর ভরাটের ব্যাপারে তদন্ত সাপেক্ষে আমরা প্রচলিত আইনুযায়ী ব্যবস্থা নেয়া হবে। এদিকে পুকুর ভরাটের বিরুদ্ধে শ্রীপল্লীর বেশ কিছু গ্রামবাসীদের স্বাক্ষরিত একটি একটি আবেদনে ভরাটরোধে কার্যকরী ব্যবস্থা গ্রহনের জন্য পরিবেশ অধিদপ্তরে আবেদন করেছে। তবে শনিবার ছুটির দিন থাকায় তা এখনও কার্যকর হয়নি।

গ্রামবাসী রুহুল আমিন জানান, মানুষ তথা জীব বৈচিত্র্যের সর্বনাশ হবে এই পুকুর ভরাট করা হলে। পরিবেশ গবেষক আরিফুর রহমান জানান, প্রাচীন এই পুকুর ভরাট হলে অন্তত আড়াই শ’ জলজ প্রাণী বিনষ্ট হবে। গ্রামবাসীরা জানায়, মফিজুল হক পুকুরটির মালিকানা দাবী করে এই ভরাট কাজ করছে। তবে তিনি জলসত্ত্ব ক্রয় করেছেন। তাই পুকুরটির শ্রেণি পরিবর্তন আইনসিদ্ধ নয়।

মফিজুল হকের পুত্র আশরাফ হাসান বলেন, পুকুরটি প্রায় ৬০ শতাংশের মালিক আমার বাবা। পুকুরের মালিক স্বত্ত্ব অনুযায়ী পুকুর পারের কিছু অংশ ভরাট করা হচ্ছে মাত্র। পুরো পুকুর ভরাট হচ্ছে না। তিনি বলেন, “এই পুকুরের সাড়ে এক সময় খালের সংযোগ ছিল তখন জোয়ার ভাটার পানি আসতো। তবে এখন সেই রূপ নেই। তবে পুকুরে বাইরের লোকজন এখানে গোসল করে। পাশের বাজারের সবজি ও মাছ এখানে পরিস্কার করা হয়। পুকুরের পানি এখন দূষিত। বরং পার বাধাই করে বৃক্ষরোপন করে পরিবেশ রক্ষার পরিকল্পনা করছি আমরা।”

মুন্সীগঞ্জের জেলা প্রশাসক মো. সাইফুল হাসান বাদল বলেন, “পরিবেশের স্বার্থে আমরা খোঁজ খবর করে কার্যকর ব্যবস্থা গ্রহন করবো।”

মুন্সিগঞ্জেরকাগজ

Comments are closed.