শেষ বারের মতো ২১ শের বাড়ীতে চাষী নজরুল ইসলাম

আরিফ হোসেন: প্রখ্যাত চিত্র পরিচালক চাষী নজরুল ইসলামের লাশ শ্রীনগরের ২১শের বাড়ীতে নিয়ে আসা হলে আত্মীয় স্বজন ও ভক্ত-অনুরাগীরা কান্নায় ভেঙ্গে পড়েন। সোমবার বিকাল সোয়া তিনটার দিকে উপজেলার সমষপুর গ্রামের বাড়ীতে তাঁর লাশবাহী আলিফ মেডিকেল সার্ভিসের গাড়িটি এসে পৌছলে এক হৃদয় বিদারক দৃশ্যের অবতারনা হয়।


চাষী নজরুল ইসলাম ২০০৪ সালে একুশে পদক পাওয়ার পর তা স্বরনীয় করে রাখার জন্য ২০০৫ সালের ২১ শে ফেব্র“য়ারী সমষপুর গ্রামের তার বাড়ীটির নাম করণ করা হয় একুশের বাড়ী। সরজমিনে দেখা গেছে তার একতলা ছোট বাড়ীটির সদর দরজার পাশে ২১শের বাড়ী নাম করণের ফলক লাগানো হয়েছে। বর্তমানে বাড়ীটিতে বসবাস করেন সমষ পুর উচ্চ বিদ্যালয়ের গনিত বিষয়ের শিক্ষক মোস্তফা কামাল। তিনি জানান, সর্বশেষ চাষী নজরুল ইসলাম গত রমজানের আগে বাড়ীতে আসেন। ওই সময় তিনি সারাদিন বাড়িতে থেকে রাত আটটার দিকে ঢাকায় ফিরে যান। তাকে শেষ বারের মতো এক নজর দেখার জন্য সকাল থেকে সমষ পুর স্কুল সংলগ্ন বাড়ীটিতে শত শত মানুষ ভীর করে।


বাদ আসর সমষপুর বিজনেস ম্যানেজমেন্ট কলেজ মাঠে তার শেষ জানাজা অনুষ্ঠিত হয়। এসময় চিত্র পরিচালক আমজাদ হোসেন, চিত্র নায়ক উজ্জল, শ্রীনগর উপজেলা ভাইস চেয়ারম্যান সেলিম হোসেন খান, এডভোকেট রফিকুল ইসলাম পুনু মিয়া, ব্যাংকার নাসির উদ্দিন আহমেদ, হান্নান খান, কোলাপাড়া ইউপি চেয়ারম্যান তৈয়ব হোসেন মামুন প্রমুখ উপস্থিত ছিলেন। চাষী নজরুল ইসলামের শেষ ইচ্ছা অনুযায়ী সমষপুর জামে মসজিদের পাশে সামাজিক কবরস্থানে তার মায়ের কবরের পাশে তাকে সমাহিত করা হয়।

Comments are closed.