চাষী নজরুল ইসলামের মৃত্যুতে শোক প্রকাশ

চাষী নজরুল ইসলামের মৃত্যুতে রাষ্ট্রপতির শোক
রাষ্ট্রপতি আব্দুল হামিদ বিশিষ্ট চলচ্চিত্র পরিচালক চাষী নজরুল ইসলামের মৃত্যুতে গভীর শোক প্রকাশ করেছেন। আজ এক শোকবার্তায় রাষ্ট্রপতি বলেন, তার মৃত্যুতে দেশের চলচ্চিত্র জগত একটি উজ্জ্বল নক্ষত্র হারালো। আব্দুল হামিদ বলেন, চাষী নজরুল ইসলাম মুক্তিযুদ্ধ ভিত্তিক ও জীবনধর্মী চলচ্চিত্র নির্মাণ করে দেশবাসীর হৃদয়ে স্থান করে নিয়েছেন।

তিনি মরহুমের আত্মার মাগফেরাত কামনা করেন এবং শোকসন্তপ্ত পরিবারের সদস্যদের প্রতি গভীর সমবেদনা জানান। চাষী নজরুল ইসলাম দুরারোগ্য ক্যান্সারে আক্রান্ত হয়ে আজ সকালে নগরীর ল্যাব এইড হাসপাতালে ইন্তেকাল করেন।

==================

চাষী নজরুল ইসলামের মৃত্যুতে গভীর শোক প্রকাশ করেছেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা

প্রখ্যাত চলচ্চিত্র পরিচালক ও প্রযোজক চাষী নজরুল ইসলামের মৃত্যুতে গভীর শোক প্রকাশ করেছেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। এক শোক বার্তায় রবিবার প্রধানমন্ত্রী বলেন, ‘চাষী নজরুল ইসলাম মুক্তিযুদ্ধভিত্তিক ও জীবনমুখী চলচ্চিত্র নির্মাণের মাধ্যমে দেশের মানুষের মনে স্থান করে নিয়েছেন। তার মৃত্যুতে দেশের চলচ্চিত্র জগতে যে ক্ষতি হলো তা সহজে পূরণ হওয়ার নয়।’

প্রধানমন্ত্রী মরহুমের বিদেহী আত্মার মাগফিরাত কামনা করেন এবং শোকসন্তপ্ত পরিবারের সদস্যদের প্রতি গভীর সমবেদনা জানান।

স্পিকার, ডেপুটি স্পিকার ও চিফ হুইপের শোক

চাষী নজরুল ইসলামের মৃত্যুতে বাংলাদেশ জাতীয় সংসদের স্পিকার শিরীন শারমিন চৌধুরীও গভীর শোকপ্রকাশ করেছেন।

এ ছাড়া জাতীয় সংসদের ডেপুটি স্পিকার মো. ফজলে রাব্বী মিয়া, জাতীয় সংসদের চিফ হুইপ আ স ম ফিরোজ আলাদা আলাদা শোক বার্তায় গভীর শোকপ্রকাশ করেছেন।

তারা সবাই মরহুমের বিদেহী আত্মার মাগফিরাত কামনা ও শোকসন্তপ্ত পরিবারের সদস্যদের প্রতি গভীর সমবেদনা জ্ঞাপন করেন।

তথ্যমন্ত্রী ও তথ্য সচিবের শোক

পৃথক শোক বার্তায় তথ্যমন্ত্রী হাসানুল হক ইনু ও তথ্য সচিব মরতুজা আহমদ চাষী নজরুল ইসলামের মৃত্যুতে গভীর শোক প্রকাশ করেছেন।

প্রসঙ্গত, চাষী নজরুল ইসলাম রবিবার ভোর ৬টার দিকে রাজধানীর ল্যাব এইড হাসপাতালে শেষ নিঃশ্বাস ত্যাগ করেন। মৃত্যুকালে তার বয়স হয়েছিল ৭৩ বছর। দীর্ঘদিন ধরেই ফুসফুস ক্যান্সারে ভুগছিলেন গুণী এ নির্মাতা।

====================

চাষী নজরুলের মৃত্যুতে রওশন ও বি. চৌধুরীর শোক

দ্য রিপোর্ট প্রতিবেদক : জাতীয় সংসদের বিরোধীদলীয় নেতা রওশন এরশাদ এমপি ও সাবেক রাষ্ট্রপতি অধ্যাপক একিউএম বদরুদ্দোজা চৌধুরী একুশে পদকপ্রাপ্ত চলচ্চিত্র নির্মাতা চাষী নজরুল ইসলামের মৃত্যুতে গভীর শোক ও দুঃখ প্রকাশ করেছেন। চাষী নজরুল ইসলাম রবিবার সকালে রাজধানীর একটি বেসরকারি হাসপাতালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় মৃত্যুবরণ করেন (ইন্নালিল্লাহি ওয়া ইন্না ইলাইহি রাজিউন)।

রবিবার গণমাধ্যমে পাঠানো এক পৃথক বিবৃতিতে শোক প্রকাশ করেন এ দুই নেতা।

শোক বার্তায় বিরোধী দলীয় নেতা রওশন এরশাদ বলেন, ‘প্রয়াত চাষী নজরুল ইসলাম চলচ্চিত্র জগতে যে গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা রেখেছেন তা পূরণ হওয়ার নয়। স্বাধীনতার পর ১৯৭২ সালে চাষী নজরুল ইসলাম নির্মাণ করেছিলেন মুক্তিযুদ্ধভিত্তিক প্রথম চলচ্চিত্র এবং তিনি-ই প্রথম ব্যক্তি যিনি মুক্তিযুদ্ধকে চলচ্চিত্রের মাধ্যমে সুন্দররূপে উপস্থাপন করেছিলেন, যা আজও ব্যাপকভাবে প্রশংসিত।’

বি. চৌধুরী বলেন, চাষী নজরুল ইসলামকে হারিয়ে বাংলাদেশ এমন একজন ব্যক্তিকে হারাল, যার স্থান অপূরণীয়।

====================

চাষী নজরুল ইসলামের মৃত্যুতে খালেদার শোক

বীর মুক্তিযোদ্ধা ও জাতীয় চলচ্চিত্র পুরস্কারপ্রাপ্ত বাংলাদেশের প্রখ্যাত চলচ্চিত্র নির্মাতা চাষী নজরুল ইসলামের মৃত্যুতে গভীর শোক ও দুঃখ প্রকাশ করেছেন বিএনপি চেয়ারপারসন খালেদা জিয়া।

রাজধানীর ল্যাব এইড হাসপাতালে রবিবার সকাল ৬টায় তিনি মারা যান।

এক শোকবার্তায় বিএনপি চেয়ারপারসন বলেন, ‘বাংলাদেশের স্বনামধন্য চলচ্চিত্র পরিচালক চাষী নজরুল ইসলামের মৃত্যুতে দেশের চলচ্চিত্রপ্রেমীদের মধ্যে গভীর শোকের ছায়া নেমে এসেছে। মহান স্বাধীনতা যুদ্ধভিত্তিক বিখ্যাত চলচ্চিত্র ওরা এগারজনসহ বহু চলচ্চিত্র নির্মাণকারী চাষী নজরুল ইসলাম বাংলাদেশের চলচ্চিত্র ইতিহাসে এক চিরঅস্তিত্বমান উজ্জ্বল জ্যোতিষ্ক হিসেবে চিহ্নিত হয়ে থাকবেন।’

তিনি বলেন, ‘একজন গুণী ও মেধাসম্পন্ন চলচ্চিত্র পরিচালক হিসেবে চাষী নজরুল ইসলাম যে কৃতিত্ব ও সুনাম অর্জন করেছিলেন তা অবিস্মরণীয় হয়ে থাকবে। একজন বীর মুক্তিযোদ্ধা হিসেবেও তিনি গোটা জাতির কাছে চিরস্মরণীয় হয়ে থাকবেন। অনন্য মেধার অধিকারী চলচ্চিত্র পরিচালক হিসেবে তিনি তার সকল চলচ্চিত্রে সমাজ ও দেশাত্ববোধ এবং বাংলাদেশের আবহমান ঐতিহ্যের এক অসাধারণ পরশে চলচ্চিত্রানুরাগী মানুষকে মন্ত্রমুগ্ধ রাখতে সক্ষম হয়েছিলেন। ছবি পরিচালনার জগতে এই অসামান্য চলচ্চিত্র পরিচালক বাংলা ছায়াছবির জগতে এক ও অদ্বিতীয় পরিচালক হিসেবে নিজেকে প্রতিষ্ঠিত করতে সক্ষম হয়েছিলেন। এই কীর্তিমান চলচ্চিত্র পরিচালকের পরলোকগমনে বাংলাদেশের ছায়াছবি প্রেমিকদের মনে যে গভীর শোকের ছায়া নেমে এসেছে তাতে আমিও গভীরভাবে শোকাহত ও মর্মাহত হয়েছি। তার মৃত্যুতে বাংলাদেশের চলচ্চিত্র পরিচালনা জগতে যে শূন্যতার সৃষ্টি হলো তা সহজে পূরণ হওয়ার নয়।’

চাষী নজরুল ইসলামের বিদেহী আত্মার মাগফিরাত কামনা করেন এবং শোকাহত পরিবারের সদস্য, ভক্ত, গুণগ্রাহী ও শুভানুধ্যায়ীদের প্রতি সমবেদনা জ্ঞাপন করেন খালেদা জিয়া।

বিবৃতিতে স্বাক্ষর করেন বিএনপির সহ-দফতর সম্পাদক মো. আব্দুল লতিফ জনি।

দ্য রিপোর্ট

Comments are closed.