লৌহজংয়ে মাওয়া পুলিশ ফাঁড়ির মদের ব্যবসা

মুন্সীগঞ্জের লৌহজংয়ের মাওয়া পুরাতন ফেরীঘাটের কাছে মাওয়া নৌ-পুলিশ ফাড়ী থেকে ১৫০ গজ দূরে নদীর পারে চলছে চোলাই (বাংলা)মদের রমরমা ব্যাবসা। ফাঁড়ি পুলিশের নাকের ডগায় দীর্ঘদিন যাবৎ মদের এ ব্যবসা প্রকাশ্যে চললেও দেখার জেনো কেউ নেই। স্থানীয় সিরাজুল ইসলাম সিরাজ (৪৫) নামের এক ব্যাক্তি আইন শৃঙ্খলাবাহিনীকে ম্যানেজ করে দীর্ঘদিন যাবত তার বাড়িতে এ ব্যবসা চালিয়ে আসছে।

সরজমিনে গিয়ে দেখা যায়, সিরাজের বাড়িতে বিভিন্ন ধরনের লোকজন আসছে এ চোলাই মদ কেনার জন্য। কোন প্রকার ভয়ভীতি ছাড়াই অনেকটা প্রকাশ্যেই চোলাই মদ বিক্রি করে চলেছেন সে। বিশেষ করে সন্ধ্যার দিকে এ চোলাই মদের বেচা-কেনা বেড়ে যায়। বিভিন্ন সময়ে আইন শৃঙ্খলা বাহিনী বিভিন্ন মাদক আস্তানায় অভিজান চালালেও সিরাজের বাড়ি থাকে অভিজান মুক্ত। অভিযোগ রয়েছে সিরাজের সাথে আইন শৃঙ্খলা বাহিনী সখ্যতার কারণেই চার বাড়িতে কখনও অভিযান হয়না। বরং নির্বিঘেœই তিনি চোলাই মদের ব্যবসা চালিয়ে যাচ্ছেন। এ ব্যাপারে সিরাজের সাথে কথা বলতে চাইলে তিনি কোন প্রকার বক্তব্য দিতে অপারগতা প্রকাশ করেন।

এ ব্যাপারে মাওয়া নৌ-পুলিশ ফাঁড়ি ইনচার্জ এসআই মো. ইউনুছ জানান, আমি নতুন এসেছি। বিষয়টি আমার জানা নেই। খোঁজ নিয়ে ব্যবস্থা নেব।

মুন্সিগঞ্জেরকাগজ