জেলা পরিসংখ্যান কার্যালয় জনবল সংকট!

মুন্সিগঞ্জ পরিসংখ্যান কার্যালয়
মুন্সিগঞ্জ জেলা পরিসংখ্যান কার্যালয় জনবল সংকটে ধুঁকছে। উপপরিচালক ও একজন উচ্চমান সহকারী দিয়ে চলছে কার্যক্রম। বর্তমানে এ কার্যালয়ের ১১টি পদ শূন্য রয়েছে।

জেলা পরিসংখ্যান কার্যালয় সূত্র জানায়, ২০১৩ সালের জুলাই থেকে এ কার্যালয়ে জেলার কার্যক্রম শুরু হয়। এর আগে এটি উপজেলা পরিসংখ্যান কার্যালয় ছিল। কার্যক্রম শুরুর প্রথম থেকেই প্রতিষ্ঠানটি জনবল সংকটে ভুগছে। মোট ১৩টি পদের মধ্যে উপপরিচালক পদে সালেহা খাতুন ও একজন উচ্চমান সহকারী কাজ করছেন। আর সহকারী পরিসংখ্যান কর্মকর্তার একটি, পরিসংখ্যান সহকারীর চারটি, ডেটা এন্ট্রি কন্ট্রোল অপারেটরের দুটি, কম্পিউটার মুদ্রাক্ষরিকের একটি, এমএলএসের একটি, নৈশপ্রহরীর একটি ও গাড়িচালকের একটি পদ শূন্য রয়েছে। গাড়িচালকের পদ থাকলেও এখানে গাড়ি বরাদ্দ নেই।

সরেজমিনে শহরের জুবলী সড়কে অবস্থিত পরিসংখ্যান কার্যালয়ে দেখা যায়, মাত্র দুজন কাজ করছেন। বিশাল কার্যালয় প্রায় ফাঁকা। জনবল সংকটের কারণে সদর উপজেলার পরিসংখ্যান কর্মকর্তা মাঝেমধ্যে জেলা কার্যালয়ে এসে প্রক্সি দিয়ে থাকেন।

সদর উপজেলার পরিসংখ্যান কর্মকর্তা ফয়সাল আহমেদ বলেন, ‘কখনো কোনো প্রয়োজনে জেলা কার্যালয় কাজের জন্য ডাকলে আমি এসে করে দিই। মাত্র দুজন দিয়ে কি জেলার কাজ চলতে পারে?’

উপপরিচালক সালেহা খাতুন প্রথম আলোকে বলেন, ‘জেলা প্রশাসক কার্যালয়ে প্রায় সময় মিটিং থাকলে বা জরুরি প্রয়োজনে মাঠে কোনো কাজে যেতে হলে অফিস থেকে একসঙ্গে দুজন বের হতে পারি না। এমনও কাজ আছে, যা আমার একার পক্ষে করা সম্ভব নয়। একজন বাইরে থাকলে তাঁর আসার পর আবার যেতে হয়। অফিস বন্ধ রাখা তো আর সম্ভব না।’

প্রথম আলো

Comments are closed.