সিরাজদীখানে পারিবারিক বৈঠকে ধস্তাধস্তি : নিহত ১

ইমতিয়াজ বাবুল: বিষয়-সম্পত্তি নিয়ে দ্বন্দ্ব মেটাতে পারিবারিক সালিশ বৈঠকে ধস্তাধস্তিতে আহত হয়ে এক ব্যক্তি নিহত হয়েছে। এ ব্যাপারে সিরাজদীখান থানায় একটি মাললা হয়েছে। জনতা ৩ আসামীকে আটক করে পুলিশে সোপর্দ করেছে।

জানা যায়, মুন্সীগঞ্জের সিরাজদীখানের সৈয়দপুরের আমিন খানের(৭০) সাথে তার ছেলে ফয়েজ খানের(৪২) একটি বাড়ির জায়গা নিয়ে দীর্ঘ দিন ধরে দ্বন্দ্ব চলছিল। এ নিয়ে শুক্রবার বিকালে আমিন খানের বাড়িতে পারিবারিক সালিস বৈঠক বসে। এ বৈঠকে খবর দিয়ে আনা হয় ফয়েজের সমন্ধি বাবুল খানসহ পরিারের আত্মীয় স্বজনদের। সালিসের এক পর্যায়ে কথাকাটাকাটি থেকে ধস্তাধস্তি ও বাবুলের প্রতি আক্রমন করা হয়। কিল-ঘুষি খেয়ে প্রতিপক্ষের আক্রমনে বাবুল ঘরের দরজার উপর পড়ে গিয়ে মাথায় আঘাত পেয়ে অজ্ঞান হয়ে পড়ে। তাকে সাথে সাথে ঢাকার ন্যাশনাল হাসপাতালে নিয়ে গেলে কর্তব্যরত চিকিৎসক তাকে মৃত ঘোষনা করে। নিহত বাবুল খান উপজেলার মধুপুর গ্রামের বিরিজ খানের ছেলে ।

এ ঘটনায় জনতা মো. হাসান (২৭) হাসিনা বেগম (৪৫) ও হালিমা বেগম (৩২)-কে আটক করে পুলিশে দিয়েছে।

সিরাজদীখান থানান ওসি ইয়ারদৌস হাসান জানান, নিহতের বড় ভাই আব্দুল রহমান খান বাদী হয়ে সিরাজদীখান থানায় ৫ জনকে আসামী করে একটি হত্যা মামলা দায়ের করেছে। লাশ ময়না তদন্তের জন্য মুন্সীগঞ্জ জেনারেল হাসপাতাল মর্গে পাঠানো হয়েছে। সিরাজদীখান থানার এসআই সাজ্জাদ জানান, নিহত বাবুল খানের মাথায় পেছনে আঘাতের চিনহ্ রয়েছে।