বাস কাউন্টার স্থাপনকে কেন্দ্র করে ঢাকা-মাওয়া মহাসড়কে ব্যারিকেড

বাস কাউন্টার স্থাপনকে কেন্দ্র করে বাস মালিকদের দু’গ্রুপের বিরোধে এলোপাতাড়ি বাস ফেলে ঢাকা-মাওয়া মহাসড়কে ব্যারিকেড দিয়ে ৪ ঘণ্টা যান চলাচল বন্ধ থাকার পর সচল হয়েছে। রোববার সকাল ৮ টায় শিমুলিয়া নতুন ঘাট এলাকায় মহাসড়কে সাড়ে ১২টা পর্যন্ত যানবাহন চলাচল বন্ধ থাকে।

স্থানীয় ঘাট সূত্র জানান, লৌহজং উপজেলার নব-নির্মিত শিমুলিয়া ফেরিঘাট এলাকায় আরাম পরিবহনের বাস কাউন্টার বসানোকে কেন্দ্র করে প্রতিপক্ষ ১২টি পরিবহনের বাস মালিক-শ্রমিকরা সড়কে এলোপাতাড়ি বাস ফেলে ব্যারিকেট সৃষ্টি করে যানবাহন চলাচল বন্ধ করে দেয়।

ঘটনার পর এএসপি শ্রীনগর সার্কেল কুতবুর রহমানের মধ্যস্থতায় পরিবহন মালিক-শ্রমিকদের দু’গ্রুপের মধ্যে দীর্ঘ সময় আলোচনা সাপেক্ষে সমঝোতার মাধ্যমে মহাসড়ক থেকে ব্যারিকেট তুলে নেয়া হলে পুনরায় যানবাহন চলাচল স্বাভাবিক হয়।

মাওয়া পুলিশ ফাঁড়ির এসআই ইউসুফ আলী জানান, বিরোধের ফলে সৃষ্টি ব্যারিকেডে মহাসড়কে যাত্রীবাহী বাসসহ সকল ধরনের যানবাহন চলাচল বন্ধ থাকে। এ সময় শিমুলিয়া ফেরিঘাট থেকে মাওয়া চৌরাস্তা ছাপিয়ে খানবাড়ি পর্যন্ত যানবাহনের দীর্ঘ যানজটের চিত্র দেখা যায়।

এরআগে রোববার ভোর ৪টা থেকে সকাল সাড়ে ৮টা পর্যন্ত ঘনকুয়াশায় মাওয়া-কাওড়াকান্দি নৌরুটে ফেরী চলাচল বন্ধ থাকে। একদিকে ঘন কুয়াশা ও অন্যদিকে পরিবহন মালিক-শ্রমিকদের দু’গ্রুপের বিরোধে মহাসড়কে যানবাহন চলাচল বন্ধ থাকায় দক্ষিণবঙ্গের যাত্রী সাধারণের ভোগান্তি চরম আকার ধারণ করে।

শীর্ষ নিউজ

Comments are closed.