পাঁচ শতাধিক যাত্রী নিয়ে ইসমানিচরে আটকা পড়েছে আচল-৪

মুন্সীগঞ্জ গজারিয়া উপজেলার সীমানায় মেঘনা নদীতে ঘন কুয়াশায় বাধাগ্রস্ত হয়ে নোঙ্গর ফেলতে বাধ্য হয়েছে যাত্রীবাহী ত্রিতল বিশিষ্ট লঞ্চ আচল-৪। লঞ্চের মাস্টার মফিজুল হক ঘটনাস্থল থেকে জানান, সোমবার ভোর সাড়ে ৪ টার দিকে গজারিয়া উপজেলার ইসমানিচর গ্রামের মেঘনার পাড়ে কুয়াশার কারণে লঞ্চটি নোঙ্গর করা হয়। কিন্তু ভাটার কারণে লঞ্চটি বালিতে আটকে যায়।

এর আগে রোববার বিকেল সোয়া ৫ টায় নারায়ণগঞ্জ লঞ্চঘাট থেকে সোনারগাঁ, দাউদকান্দি, মুন্সীগঞ্জ, গজারিয়া ও নারায়ণগঞ্জসহ আশপাশ আঞ্চলের প্রায় ৫ শতাধিক যাত্রী নিয়ে পিরোজপুর জেলার ছরছিনা পীর এলাকার উদ্দেশ্যে যাত্রা করে।

তিনি আরো জানান, বেলা বাড়ার সঙ্গে সঙ্গে ট্রলার ও নৌকাযোগে বিভিন্নভাবে বেশিরভাগ যাত্রী নিজ গন্তব্যে যাত্রা শুরু করে। তবে লঞ্চে এখনো অর্ধশত যাত্রী রয়েছে। ১২ টায় জোয়ার এলে লঞ্চটি সরিয়ে নেয়া সম্ভব হবে।

কিশোরগঞ্জের যাত্রী মো. আবু জাফর জানান, শাহ মোহাম্মদ মহিবুল্লাহ (ছরছিনা) পীর বাড়ির উদ্দেশ্যে রিজার্ভ নেয়া হয় লঞ্চটি। যাত্রাপথে তেমন সমস্যা না হলেও ভোরে লঞ্চটি আটকে গেলে যাত্রীদের অনেক কষ্ট করে নদী পার হয়ে গন্তব্যে যেতে হচ্ছে।

গজারিয়া ফাঁড়ির আইসি সাখাওয়াত হোসেন ঘটনার সত্যতা স্বীকার করে জানান, যাত্রীদের বেশিরভাগ চলে গেছে। তবে লঞ্চ বালিতে আটকে যাওয়ায় জোয়ার পর্যন্ত অপেক্ষা করতে হবে। তবে পুলিশের একটি টিম ঘটনাস্থলে তদারকি করছে।

শীর্ষ নিউজ

Comments are closed.