চরডুমুরিয়ায় ভয়াবহ সংঘর্ষ : ২০০ ককটেল বিস্ফোরণ : আহত ২৫

sssssশেখ মো. রতন: আধিপত্য বিস্তারকে কেন্দ্র করে মুন্সীগঞ্জের সদর উপজেলায় বৃহস্পতিবার রাতে দুপক্ষের মধ্যে ভয়াবহ সংঘর্ষ হয়েছে। উপজেলার চর-এলাকার চরডুমুরিয়া গ্রামে মোল্লাকান্দি ইউনিয়নের চেয়ারম্যান রিপন পাটোয়ারী ও জেলা আওয়ামী লীগের সহসভাপতি শাহ-আলম মল্লিকের সমর্থকের মধ্যে এ সংঘর্ষ চলাকালে দুই শতাধিক ককটেল মুহুর্মুহু বিস্ফোরণ ঘটানো হয়। বৃহস্পতিবার রাত ৮টা থেকে সাড়ে ১০টা পর্যন্ত প্রায় দেড় ঘণ্টাব্যাপী এ সংঘর্ষ চলে।

এ সময় দফায় দফায় ধাওয়া-পাল্টা ধাওয়া ও সংঘর্ষে উভয় গ্রুপের প্রায় ২৫ জন কর্মী-সমর্থক গুরুতর আহত হয়েছেন। সংঘর্ষ ও মুহুর্মুহু ককটেল বিস্ফোরণের বিকট শব্দে গ্রামের সাধারণ মানুষের মধ্যে আতঙ্ক ছড়িয়ে পড়ে।

পুুলিশের গ্রেফতারের ভয়ে আহতদের স্থানীয় প্রাইভেট ক্লিনিকে ভর্তি করে চিকিৎসা দেওয়া হচ্ছে।

ঘটনার সত্যতা স্বীকার করে সদর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি/তদন্ত) ইয়ারদৌস হাসান জানান, চর-এলাকার চরডুমুরিয়া গ্রামে দুই গ্রুপের সংঘর্ষ ও শতাধিক বোমা বিস্ফোরণের ঘটনা ঘটেছে।

ককটেল বিস্ফোরণ ও সংঘর্ষের খবর পেয়ে সদর থানা পুলিশের একাধিক টিম ঘটনাস্থলে গেলে বিবদমান দুই গ্রুপেরই শতাধিক কর্মী-সমর্থক পালিয়ে যেতে সক্ষম হয়।

সদর থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) আবুল খায়ের ফকির জানান, বর্তমানে সেখানকার পরিস্থিতি শান্ত রয়েছে। ফের অপ্রীতিকর ঘটনা এড়াতে ওই গ্রামে অতিরিক্ত পুলিশ মোতায়েন করা হয়েছে। এ ঘটনায় থানায় মামলার প্রস্তুতি চলছে।

রাইজিংবিডি

==========

মুন্সীগঞ্জে দু’গ্রুপে সংঘর্ষ, শতাধিক ককটেল বিস্ফোরণ

সদরে ইউপি চেয়ারম্যান ও জেলা আওয়ামী লীগ নেতার সমর্থক দু’গ্রুপের মধ্যে বৃহস্পতিবার রাতে শতাধিক ককটেল বিস্ফোরণ ঘটেছে।

এ সময় দফায় দফায় ধাওয়া-পাল্টাধাওয়া ও সংঘর্ষে উভয় গ্রুপের বেশ কয়েকজন সমর্থক আহত হয়েছেন। তাৎক্ষণিকভাবে আহতদের পরিচয় পাওয়া যায়নি।

মোল্লাকান্দি ইউনিয়নের চেয়ারম্যান রিপন পাটোয়ারী ও জেলা আওয়ামী লীগের সহ-সভাপতি শাহ-আলম মল্লিকের সমর্থক দু’গ্রুপে চরডুমুরিয়া গ্রামে ওই ককটেল বিস্ফোরণ ও সংঘর্ষ হয়েছে।

সদর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি, তদন্ত) ইয়ারদৌস হাসান দু’গ্রুপের সংঘর্ষ ও ককটেল বিস্ফোরণের বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন।

তিনি জানান, রাত সাড়ে ৭টা থেকে ৯টা পর্যন্ত দেড় ঘণ্টাব্যাপী চরডুমুরিয়া গ্রামে দু’গ্রুপে ধাওয়া-পাল্টাধাওয়া ও সংঘর্ষ হয়।

এ সময় গ্রামের দু’প্রান্তে অবস্থান নিয়ে দু’গ্রুপের সমর্থকরা একে অপরকে লক্ষ্য করে এলোপাতাড়ি ককটেল নিক্ষেপ করে। মুহুর্মুহু ককটেল বিস্ফোরণের শব্দে গ্রামে আতঙ্ক ছড়িয়ে পড়ে।

খবর পেয়ে পুলিশের একাধিক টিম ঘটনাস্থলে গেলে বিবদমান দু’গ্রুপের সমর্থকরা পালিয়ে যায়। বর্তমানে সেখানকার পরিস্থিতি শান্ত আছে। ওই গ্রামে অতিরিক্ত পুলিশ মোতায়েন রয়েছে।

দ্য রিপোর্ট

Comments are closed.